বটিয়াঘাটায় সমবায় সমিতির নামে ছয় লাখ টাকা নিয়ে পলাতক

0
352

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি:
বটিয়াঘাটায় গ্রাম বাংলা সমবায় সমিতির নাম ভাঙিয়ে একটি চক্র সহজ শর্তে গ্রাহকদের ঋণ দেওয়ার নাম করে প্রায় ছয় লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে গেছে। বটিয়াঘাটা উপজেলা সদরে এ একটি ঘর ভাড়া নিয়ে তারা মার্চ মাস থেকে কার্যক্রম শুরু করে। তাদের ঘোষণা অনুযায়ী ১ হাজার টাকা, জমা দিলে এক লক্ষ টাকা ৮ পার্সেন্ট সুদে ঋণ দেবে লোকজন এই সুযোগ গ্রহণের জন্য এই পর্যন্ত ৬ লক্ষ টাকা গ্রাহকরা জমা দিয়েছে। কিন্তু ১০ মার্চ ঋণ দেওয়ার কথা থাকলে ঐদিন সকালে তারা মোবাইলের মেসেঞ্জারের মাধ্যমে জানিয়ে দেয় আজকে অফিস বন্ধ থাকবে। অফিসে লোকজন ঋণ নেওয়ার জন্য জমায়েত হলে অফিসে কর্মরত উপজেলার বসুরাবাদ গ্রামের মৃত্যুঞ্জয় কবিরাজ ও দেব প্রসাদ মন্ডল জানায়, তাদের আজকে এসে ঋণ দেওয়ার কথা ছিল। খবর পেয়ে গ্রাহকরা অফিসে এসে ভিড় করে এ ব্যাপারে তারা বটিয়াঘাটা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি তুলে ধরে। মৃত্যুঞ্জয় কবিরাজ সাংবাদিকদের জানান, তারা তাদের কাছে জমা ২০ হাজার টাকা ০১৯৫৩ ৩৬৩৯৬৪ বিকাশ করেছে। এ ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান, মামুন, ওহিদ মোল্লা, কাশেম, সুজন মন্ডল, ৫০ থেকে ৬০ জন অভিযোগ করে, তারা বটিয়াঘাটা সদরে বসবাসকারী সুব্রত মন্ডল এর ঘর ভাড়া নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় সমিতি খাড়া করে তাদেরকে ঋণ দেবে বলে ১০ হাজার টাকা করে জমা নেয়। অফিসে নিয়োগ পাওয়া মৃত্যুঞ্জয় ও দেব প্রসাদ জানান, তারা সম্প্রতি নিয়োগ পেয়েছেন এবং এ সংক্রান্ত তেমন কিছু জানেন না। যশোরের শামীম ও মাগুরার রায়হান এই সমিতি খাড়া করে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে। বিষয়টি গ্রাহকরা থানায় গেলে থানা থেকে তাদের কোর্টে কেস করার জন্য পরামর্শ দেয়। এ পর্যন্ত প্রতারকদের কোন হদিস পাওয়া যায়নি। গ্রাহকরা কোর্টে প্রতারণার মামলা করতে যাচ্ছে। গ্রাম বাংলা সমবায় সমিতির নামের কোন সমিতির বটিয়াঘাটা সমবায় অধিদপ্তরে তালিকাভুক্ত নয়, তাদের রেজিস্ট্রেশন নাম্বার নেই। এ ধরনের প্রতারক দের হাত থেকে গরিব মানুষদের রক্ষার জন্য প্রশাসনের কঠোর হওয়া দরকার বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন। ইতোপূর্বে চলন্তিকা ও মুন ফাউন্ডেশন গ্রাহকদের কোটি কোটি টাকা নিয়ে গা ঢাকা দিয়েছে।