বঙ্গবাসী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেএমপি কমিশনার

0
81

নিজস্ব প্রতিবেদক
শনিবার সকালে নগরীর খালিশপুর থানাধীন বঙ্গবাসী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫৯ তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং শান্তির পায়রা উড্ডয়নের মধ্য দিয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কেএমপি’র পুলিশ কমিশনার মোঃ মোজাম্মেল হক, বিপিএম (বার), পিপিএম-সেবা । বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কেএমপি’র পুলিশ কমিশনার উপস্থিত সকলকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি বক্তব্যে বলেন, “ক্রীড়াই শক্তি ক্রীড়াই বল। আমরা সবাই জানি ক্রীড়া ও শিক্ষা অঙ্গাআঙ্গিক ভাবে জড়িত। একজন মানুষকে সুস্থ থাকতে হলে অবশ্যই শারীরিকভাবে ফিট থাকতে হয়। এক্ষেত্রে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলার কোন বিকল্প নাই। শিক্ষা যে শুধু মানসিক বিকাশ ঘটায় তা নয় আমাদের স্বাস্থ্যও ভালো রাখে। জীবনের সব ক্ষেত্রে যে জয়ী হওয়া যায় না কখনো কখনো পরাজিত হতে হয়, ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিশুদের এই পরাজিত হওয়ার মানসিকতাও গড়ে ওঠে। খেলার মাঠ থেকে নির্মল বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। খেলাধুলার ভিতরে সন্তানেরা নিজেদেরকে ব্যস্ত রাখলে মাদক, ইভটিজিং কিংবা বিপথে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কমই থাকে খেলাধুলার মাধ্যমে যেমন মানসিক বিকাশ ঘটে তেমনি শিশু কিশোরেরা পারস্পরিক সহমর্মিতা ও শ্রদ্ধাবোধ বৃদ্ধি পায়। সুতরাং খেলাধুলা চর্চার কোন বিকল্প নাই। আমি শিক্ষকদের অনুরোধ করবো প্রতিদিন জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পরে এবং টিফিন টাইমে যেন শরীর চর্চা ও খেলাধুলার ব্যবস্থা রাখা হয়। আমাদের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি ইতিহাসের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও একজন দক্ষ ক্রীড়াবিদ ছিলেন। কাজেই আমাদের আজকের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন আমাদের সন্তানরাও দক্ষ ক্রীড়াবিদ হিসেবে গড়ে উঠবে এটাই আমার প্রত্যাশা। কিশোর এবং যুব সমাজ যেন মাদকের দিকে ধাবিত না হয় সেজন্য তিনি ছাত্রছাত্রীদের খেলাধুলার পাশাপাশি বিখ্যাত মনীষী ও কবি সাহিত্যিকদের লেখা বই, উপন্যাস পড়ার জন্য উৎসাহ প্রদান করেন। দেশ এবং দেশের বাইরের কি ঘটছে এসব সম্পর্কে ধারণা রাখার এবং সাধারণ জ্ঞান অর্জন করার জন্য উদ্বুদ্ধ আমাদের ছেলে মেয়েরা যেন মোবাইলে গেমস ও পর্ণগ্রাফিতে আসক্ত হয়ে না পড়ে সেদিকে অভিভাবক ও শিক্ষকদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান। সবশেষে তিনি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী এবং নৃত্য পরিবেশনকারী সকলকে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য সমাপ্ত করেন।
বঙ্গবাসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মৃধা শরিফুজ্জামান জামালের সভাপতিত্বে ও প্রধান শিক্ষক মোঃ দেলোয়ার হোসেনের সার্বিক তত্বাবধায়নে উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারি পুলিশ কমিশনার (স্টাফ অফিসার টু পিসি) ইমদাদুল হক, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র-২ ও সভাপতি রোটারী স্কুল এবং নিউজপ্রিন্ট স্কুল এন্ড কলেজ এস এম খুরশিদ আহম্মেদ টোনা, খালিশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ার হোসেন, ১৩ নং আ’লীগের সভাপতি এস এম মোরশেদ আহম্মেদ মনি, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত আসন-৩ নং আসনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাফিজা খানম মীরা, খালিশপুর পৌর সুপার মার্কেট ব্যবাসায়ি কল্যান সমিতির সভাপতি হাসান হাফিজুর রহমান, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি এস এম নূর হাসান জনি, অভিভাবক সদস্য সিদ্দিকুর রহমানসহ বঙ্গবাসী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।