ফুলবাড়ীগেট ভয়াবহ আগুনে ৯ পরিবারের সোয়া কোটি টাকার ক্ষতি

0
270

ফুলবাড়ীগেট (খুলনা) প্রতিনিধি :
নগরীর কেসিসি ২নং ওয়ার্ডের ফুলবাড়ীগেট পুর্ব সেনপাড়ায় ভয়াবহ আগুনে পনেরটি ঘর সম্পুন্ন ভুষিভুত হয়েগেছে। ঘরের আসবাপত্র, পরীক্ষার্থীর বই-খাতা সহ সর্বস্ব পুড়ে সম্পুন্ন সর্বশান্ত হয়ে গেছে ৯টি পরিবার। প্রাথমিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান সোয়া ১ কোটি টাকা বলে জানা গেছে। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আব্দুল হালিম, জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি, স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি, কাউন্সিলর, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাৎক্ষনিক ভাবে সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিটি পরিবারকে নগদ ২ হাজার টাকা, ১টি শাড়ী, ১টি লুঙ্গি ও ২টি করে কম্বল প্রদান করেন।


জানা গেছে, দৌলতপুর থানাধীন ফুলবাড়ীগেট পুর্ব সেনপাড়ার আলতাফ হোসেন কাজীর বাড়ীতে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। ঘনবসতিপুর্ণ এলাকা হওয়ায় মুহুর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে পাশ^বর্তি কয়েকটি বাড়ীতে। এ সময় পরিবারের অধিকাংশ সদস্যরা বিভিন্ন কাজে বাড়ীর বাহিরে থাকায় ঘর থেকে কোন জিনিসপত্র বাহির করতে পারিনি। স্থানীয়রা আগুন এবং ধুয়া দেখে ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রের চেষ্টা করে।


এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়ার এক ঘন্টা পর ঘটনাস্থলে আসায় ক্ষতির পরিমান বেশি হয়েছে তবে তাদের আসতে পাশ^বর্তি বাড়ীঘর গুলো রক্ষা পেয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে আসার আগেই আলতাফ হোসেন কাজী, তার জামাই মোঃ কাইয়ুম হাওলাদার, ভাড়াটিয়া মোঃ আঃ হাকিম, মোঃ নয়ন, মোঃ সাব্বির হোসেন, তার ভাড়াটিয়া মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ আবু বক্কার, মোঃ জয়নাল ও সাহেব আলীর ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ৯টি পরিবারের নগদ অর্থ, টিভি, ফি্রারিজ, সোনাদানা, দামীদামী ফার্ণিসার, আসবাপত্র সহ প্রায় সোয়া এক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানাগেছে। ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে কাইয়ুম হাওলাদার জমি রেজিষ্ট্রি করার জন্য রাখা নগদ সাড়ে ১৪ লক্ষ টাকা, ট্রাক ড্রাইভার আবু বক্কার ও মিজানুরের ঘরে রাখাা নগদ ৪/৫ লক্ষ টাকা ছিলো বলে ক্ষতিগ্রস্থরা জানিয়েছেন।

ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন খুলনা সির্টি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আব্দুল হালিম, স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি আলহাজ্জ মোঃ সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ, জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আরিফ হোসেন, কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম, আ’লীগ নেতা এফ এম জাহিদ হাসান জাকির সহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ। সিটি কর্পোরেশনের মেয়রের পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিটি পরিবারকে নগদ ২ হাজার টাকা, ১টি শাড়ী, ১টি লুঙ্গি এবং ২টি করে কম্বোর বিতরণ করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল হালিম। এ সময় তিনি ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলোকে শান্তনা দিয়ে বলেন ক্ষতির পরিমান যে এত বেশি এটা আমি উপলব্দি করতে পরিনি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতির পরিমান দেখে আমার শান্তনা দেওয়ার ভাষা নেই। ঘটনাস্থল থেকেই তিনি বিষয়টি জেলা প্রশাসকের দয়িত্বশীল ব্যক্তি এবং মেয়র মহোদয়কে ফোনে অবহিত করেন। এদিকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো সর্বস্ব হারিয় তাদের কান্নায় এলাকার বাতাস ভারী হয়ে উঠে। তাদের আর্তনাতে হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসে। উপস্থিত জনতা পরিবার গুলোকে সহযোগিতার জন্য সকলকে এগিয়ে আসার জন্য আহবান জনিয়েছে।