ফকিরহাটে এক পরিবারকে মারধর, হামলা, মামলা ও নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে

0
1039

ফকিরহাট প্রতিনিধি:
ফকিরহাট থানার পিলজংগর গ্রামের নিরিহ পরিবারের জমি দখল, ভাংচুর ও মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এ ঘটনায় নিরিহ পরিবারের একজন হাসপাতালে মুমুর্ষ অবস্থায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।
স্থানীয় ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, এস আই মিজানুর রহমান ও তার ছোট ভাই মিন্টু, প্রফেসর রঞ্জন, দেবাশিষ, কালু, কোমল দত্ত, কৃষ্ণ দত্তসহ ১০/১২ জন মিলে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১ টার দিকে ফকিরহাট থানার পিলজংগর গ্রামের আব্দুল জলিল মোরলের জমি দখল করতে আসে। এ সময় ওই পরিবারের সদস্যরা তাদের বাধা দিলে সন্ত্রাস বাহিনীরা নিরিহ পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা, মারধর করে একাধিক লোককে জখম করেছে । পরে ঘটনাস্থলে মারধর আর হামলা শেষে জলিল মোড়লের মার্কেটে এসে পুনরায় হামলা ভাংচুর চালায়। এসময় ওই হামলায় ফকিরহাট গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডের কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম মোরল গুরুতর আহত হলে তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষক রঞ্জন মারধরের সময় মোজাম মোড়লের হাত পা চেপে ধরলে সন্ত্রাসীরা বেধরক মারধর করেছে। জানা গেছে, সিলেট বিয়ানী বাজার থানায় কর্মরত এস আই মিজানুর রহমান এর হকুমে তার ভাই মিন্টু ও তার সন্ত্রাস বাহিনীরা মাঝে মাঝে ওই পরিবারের জমি দখল করে এবং আইনের অপব্যবহার আর ভয়ভিতি দেখিয়ে তাদের বাড়ি ছাড়া করে রাখার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। ওই সন্ত্রাস বাহিনীরা নিরিহ পরিবারের উপর মারধর করার পর থেমে নেই তাদেরকে মিথ্যা মামলায় দুই সদস্য জেল হাজত খাটাচ্ছে এমনকি সকলকে বাড়ি ছাড়া করেছে।
এ ব্যাপারে ফকিরহাট থানার ওসি (তদন্ত) জগন্নাত দত্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উভয় পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবত দন্দ রয়েছে। তবে এ ঘটনায় কোন পুলিশের ইন্ধন বা নেতৃত্ব থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ থাকে, সম্প্রতি সিলেট বিয়ানী বাজার থানায় কর্মরত এস আই মিজানুর রহমান নিরিহ পরিবারের বিরুদ্ধে স্বরাস্ট্রমন্ত্রনালয়ে একটি হয়রানী মুলক অভিযোগ করেছিলেন। পরে ওই অভিযোগের তদন্ত করেন ফকিরহাট থানার ওসি (তদন্ত) জগন্নাত দত্ত। তিনি বলেন যে অভিযোগ করেন সেই অভিযোগের তদন্তে মিথ্যা প্রমানীত হয়েছে। এটা একটি হয়রানী মুলক অভিযোগ।