প্রধানমন্ত্রী’র প্রতি খুলনা আ’লীগের কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন

0
594

বিজ্ঞপ্তি : খুলনা সিটি কর্পোরেশনে সড়ক উন্নয়ন ও মেরামত কাজের জন্য ৬০৭ কোটি টাকা অর্থ বরাদ্দ এবং অনুমোদন পেয়েছে একনেকের বৈঠকে। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ অর্থের অনুমোদন দেয়া হয়। খুলনা মহানগরীর উন্নয়নে ৬০৭ কোটি টাকার অনুমোদন দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা’র প্রতি কৃতজ্ঞতা, অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা সব সময়ই খুলনায় বিশেষ নজর রেখে থাকেন। যেকারনে খুলনায় আধুনিক রেলস্টেশন, নতুন রেললাইন স্থাপন, পাইপ লাইনে গ্যাস সরবরাহ, আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতাল, বিভাগীয় স্টেডিয়াম, জেলা স্টেডিয়াম নির্মান, মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স, নতুন করে সরকারি কলেজ ও স্কুল নির্মান, আইসিটি পার্ক স্থাপন, ওয়াসার মাধ্যমে সুপেয় পানি সরবরাহ, শহীদ হাদিস পার্ককে আধুনিকায়ন, ময়ূর নদীর তীরে লিনিয়ার পার্ক স্থাপন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ও খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, খালিশপুরে বন্ধ জুট মিল চালু, নার্সিং ইনস্টিটিউট স্থাপন, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে আধুনিকায়ন করণ, শিপইয়ার্ডকে আন্তর্জাতিক মানের করে গড়ে তোলা, যা আজ বিশ্ব বাজারে জাহাজ নির্মানে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করেছে। এছাড়া অচল মোংলা বন্দরকে আধুনিকায়ন করণ, নদীর নাব্যতা সৃষ্টি করে জাহাজ চলাচলের উপযোগী করণ, রামপালের ফয়লায় খানজাহান আলী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর স্থাপনে অর্থ বরাদ্দ, রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন, মোংলায় ইপিজেড স্থাপন, মোংলাকে অর্থনৈতিক জোন ঘোষণা করা হয়েছে। গত পাচ বছরে খুলনা মহানগরীতে উন্নয়ন না করে অর্থের অপচয় করা হয়েছে। ফলে থমকে গিয়েছিলো মহানগরীর উন্নয়ন। পদ্মা সেতু নির্মান কাজ শেষ হলে দক্ষিণাঞ্চল হবে বাংলাদেশের মূল চালিকা শক্তি। আর খুলনা মহানগরী হবে অর্থনৈতিক রাজধানী।

খুলনাকে তিলোত্তমা নগরীতে পরিণত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন করে যে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন সেজন্যে খুলনাবাসির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কেন্দ্রিয় নেত্রী ও সাবেক মন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, জেলা আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী সহ দলের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ।