প্রধানমন্ত্রীর জন্য সংসদে দেড়শ প্রশ্ন

0
282

মঙ্গলবার শুরু হওয়া বাজেট অধিবেশনে জবাব দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে ১৫০টি প্রশ্ন করা হয়েছে। আর অন্যান্য মন্ত্রীদের জন্য পাওয়া গেছে ২ হাজার ৫০৭টিসহ মোট ২ হাজার ৬৫৭টি প্রশ্ন। এছাড়া সিদ্ধান্ত প্রস্তাব ১৭১টি ও মনোযোগ আকষর্ণের ৪২টি এবং সংক্ষিপ্ত আলোচনার জন্য ১টি নোটিশ পাওয়া গেছে।

সোমবার (৪ জুন) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদের কার্য উপদেষ্টা কমিটির ২১তম বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়। কমিটির সভাপতি জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সংসদ নেতা ও কমিটির সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন। কমিটির সদস্য বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, রাশেদ খান মেনন, আ স ম ফিরোজ, মইন উদ্দীন খান বাদল এবং সভাপতির অভিপ্রায় অনুযায়ী বিশেষ আমন্ত্রণে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বৈঠকে অংশ নেন।

প্রসঙ্গত, সংসদ চলাকালীন প্রতি বুধবার অধিবেশন শুরুর পর প্রথম আধাঘন্টা লিখিত, তারকা চিহ্নিত ও সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দিয়ে থাকেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীরা। বৈঠকের শুরুতে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণ ও শান্তি নিকেতন কর্তৃক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মানসূচক ডি. লিট ডিগ্রি অর্জন করায় কমিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানায়।

বৈঠক অনুযায়ী, দশম জাতীয় সংসদের ২১তম এই অধিবেশন ১২ জুলাই পর্যন্ত চলবে। পবিত্র রমজান মাসে প্রতি দিন সকাল সাড়ে ১০টায় এবং রমজানের পর প্রতি দিন বিকেল ৩টায় অধিবেশন শুরু হবে।

৭ জুন (বৃহস্পতিবার) দুপুর সাড়ে ১২টায় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করা হবে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস হওয়া পর্যন্ত প্রতি বৃহস্পতিবার চারটি সরকারি দিবস হিসেবে গণ্য হবে। ১০ ও ১১ জুন সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনা হবে। ২৮ জুন বাজেট পাস হবে। এছাড়া ২৭ জুন অর্থবিল পাস হবে। ২৩ জুন (শনিবার) একদিন ব্যতীত প্রতি শুক্র ও শনিবার অধিবেশন বন্ধ থাকবে। বৈঠকে সাধারণ বাজেটের ওপর মোট ৪০ ঘন্টা আলোচনার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। তবে প্রয়োজনে দিন ও সময় স্পিকার পরিবর্তন করতে পারবেন।

বৈঠকে জানানো হয়, এ অধিবেশনে উত্থাপনের জন্য ৪টি সরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে। এছাড়া সংসদে পাসের অপেক্ষায় ৪টি, কমিটিতে পরীক্ষাধীন ৭টি ও উত্থাপনের অপেক্ষায় ২টিসহ অনিষ্পন্ন মোট ১৭টি সরকারি বিল এবং অনিষ্পন্ন ৯টি বেসরকারি বিল এ অধিবেশনে রয়েছে। এ অধিবেশনে উত্থাপনের জন্য কোনো বেসরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া যায়নি।

সংসদের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবদুর রব হাওলাদার বৈঠকের কার্যপত্র উপস্থাপন করেন। সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।