প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই দুই কন্যা সন্তানকে ফেলে দ্বিতীয় বিবাহ, অতঃপর

0
634

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধি :
নগরীতে মুক্তিযোদ্ধার কন্যা স্কুল শিক্ষিকা দুই কন্যা সন্তানের জননী শাহাজাদী রিয়াকে ষড়যন্ত্র করে বাড়ী থেকে উচ্ছেদ এবং প্রতারণার মাধ্যমে বাড়ী বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা এবং ভুক্তভোগী সুত্রে জানা গেছে. খানজাহান আলী থানাধীন মীরেরডাঙ্গা কেডিএ এলাকার মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহজাহান শিকদারের কন্যা, যোগিপোল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শাহাজাদী রিয়া সথে পিরোজপুর জেলার স্বরুপকাঠির উত্তর করফা নেছারাবাদের মৃত জয়নাল আবিদীনের পুত্র শরিয়াতুল ইসলামের সাথে ১৯৯৭ সালের ১১ জুলাই বিবাহ হয়। বিবাহের পর শাহাজাদী বাবার কাছ থেকে এবং চাকুরীর জমানো অর্থ দিয়ে মীরেরডাঙ্গা কেডিএ আবাসিক এলাকায় জনৈক মোঃ ইমদাদুল হকের কাছে থেকে জমি ক্রয় করে। পরবর্তিতে চাকুরীর বিভিন্ন ফান্ড থেকে টাকা তুলে দ্বীতলা একটি বাড়ী নির্মান করা হয়। ঘটনাক্রমে জানাযায় শাহাজাদীর স্বামী শরিয়াতুল স্ত্রীর দুর্বলতার সুযোগে অসৎ উদ্দেশ্যে প্রতারণার মাধ্যমে কৌশলে জমিটি স্ত্রীর নামে না কিনে নিজের নামে দলীল করে। বিষয়টি জানাজানির পর স্থানিয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে ষ্ট্যাম্প রেজিস্ট্রি চুক্তিনামা সম্পন্ন করা হয়। চুক্তিতে সর্বস্মতিক্রমে বাড়ীর বা সম্পতির ৫৫% অর্থ সম্পদ স্ত্রী শাহাজাদী পাইবে, কোন কারণে বাড়ীটি বিক্রি করলে চুক্তি অনুযায়ী সমপরিমান অর্থ স্ত্রীকে দিতে হবে। চুক্তি কিছুদিন পর থেকে শরিয়াতুলের গতিবিধি এবং আচরণ সন্ধেহজনক হয় । এরই পর তিনি স্ত্রী-কন্যাদের ছেড়ে চার বছর আগে নিরুদ্দেশ হয়। শাহাজাদী জানান, দীর্ঘদিন আত্মগোপনে থাকার পর জানাজায় সে তার এলাকায় আজাহার উদ্দিনের কন্যা নার্গিসকে বিবাহ করে ঢাকার যাত্রাবাড়ী আদর্শবাগ কোনাপাড়া আলী আহম্মদ খান রেডে তার চাচাতো ভাইয়ের বাসায় অবস্থান করছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শরিয়াতুলের সাথে তার মুঠো ফোনে(০১৭১৮৪৫৪০৮০) নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। শরিয়াতুল তার অপরাধ ঢাকতে ঢাকাতে অবস্থান করে খুলনার স্থানীয় একটি গ্রæপকে এবং সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে আমার এবং আমার দুই কন্যা সন্তানের একমাত্র বসবাসের আবাসস্থল বাড়িটি বিক্রির জন্য ষড়যন্ত্র করছে এবং বিভিন্ন ভাবে জীবন নাশের হুমকি প্রদান করছে।
অসহায় শাহাাজাদী এবং দুই কন্যা সন্তানশমী ইসলাম রিতি বয়রা মহিলা কলেজ এবংদ্বীতিয় কন্যা সামিহা ইসলাম রিমি খানজাহান আলী কেডিএ সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী। অসহায় শাহাজাদীর একমাত্র আশ্রয় স্থল কেড়ে নিয়ে যাতে পথে বসাতে না পারে এ ব্যাপারে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।