পাইকগাছায় গাছে ঝুলন্ত যুবকের লাশের পরিচয় মিলেছে

0
246

আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যা?

শেখ নাদীর শাহ্ ::

পাইকগাছা থানা পুলিশ রবিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে উপজেলার লস্কর ইউনিয়নের চকবগুড়া মৌজায় নির্মাণাধীন কৃষি কলেজ সংলগ্ন নিম গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় এক অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে। প্রথমে তার নাম পরিচয় না জানা গেলেও মৃতদেহ উদ্ধারের কয়েক ঘন্টা পর তার পরিচয় সনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। মৃত যুবকের নাম পুষ্পেন মন্ডল (২৩) সে পার্শ্ববর্তী কয়রা উপজেলার উত্তর চান্নিরচক গ্রামের গণেশ চন্দ্র মন্ডল ও সবিতা রানী মন্ডলের ছেলে।
তবে এটি হত্যা না আত্নহত্যা তা তাৎক্ষণিক নিশ্চিত হওয়া নাগেলেও রহস্য উন্মোচনে থানার ওসি, পিবিআইসহ সিআইডি কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রবিবার (২৫ এপ্রিল) ভোরে উপজেলার লস্কর ইউনিয়নের চকবগুড়া মৌজায় নির্মাণাধীন কৃষি কলেজ ও মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীরের মালিকানাধীন চিংড়ী ঘের এলাকায় প্রধান সড়কের পাশে নিম গাছে গলায় রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি দেখে স্থানীয়রা থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশটি উদ্ধার করলেও প্রথমে শনাক্ত করতে পারেনি। এসময় মৃতদেহের শরীরে শেওলা লাগানোসহ পরনে গ্যাবাডিনের প্যান্ট ছিল। এক পায়ে মোজা ও লাশের পাশে একটি গেঞ্জি ফেলানো ছিল।
মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীরের ঘের কর্মচারী হাসান জোয়াদ্দার জানান, রবিবার ভোরে ঘেরের বাগদা চিংড়ি ধরা ঘুনি থেকে মাছ ধরতে গিয়ে নিম গাছে ঝুলন্ত লাশ দেখে প্রতমত ভয়ে দৌঁড়ে বাসায় গিয়ে তিনি ম্যানেজারকে জানান। এরপর থানা পুলিশকে খবর দেওযা হয়।
এব্যাপারে পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এজাজ শফী জানান, এনআইডি কতৃপক্ষের সহায়তায় আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে পুলিশ জানতে পারে মৃত যুবকের নাম পুষ্পেন মন্ডল (২৩)। সে পার্শ্ববর্তী কয়রা উপজেলার উত্তর চান্নিরচক গ্রামের গণেশ চন্দ্র মন্ডল ও সবিতা রানী মন্ডলের ছেলে। তার পারিবারিক সূত্র জানায়, শনিবার (২৪ এপ্রিল) রাতে ঝগড়া করে পুষ্পেন বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এরপর পরিবারের কারও সাথে তার দেখা হয়নি।
সর্বশেষ মৃতদেহ উদ্ধার করে সুরোতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা তা নির্নয়ে মৃতদেহের ডিএনএ পরীক্ষার সাম্ভলিসহ ময়না তদন্তর পর জানা যাবে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।