পশ্চিম সুন্দরবনের কৈলাশগঞ্জ টহল ফাড়ির বেহাল দশা

0
302

আজিজুর রহমান, দাকোপ (খুলনা) প্রতিনিধি, খুলনাটাইমস:
খুলনা জেলার দাকোপ উপজেলার পশ্চিম সুন্দরবনের কৈলাশগঞ্জ টহল ফাড়ির বেহাল দশা হয়েছে। নিরাপত্তাহীনতায় বনকর্মীরা। জলে কুমির, ডাঙ্গায় বাঘ, সাপ, ডাকাত এদের মধ্যে দিনরাত অবস্থান করতে হয় বন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীদের। তার উপর হয় যদি ভাঙ্গা নড়বড়ে অফিস ও বাসগৃহ। ভিত্তিকর পরিস্থিতিতে এমনি দুরবস্থার মধ্য দিয়ে চলছে কৈলাশগঞ্জ টহল ফাড়ির কর্মকর্তা ও বন প্রহরিদের চাকুরী জীবন।
সরেজমিনে দেখাযায়, ভাঙ্গা-চোরা ঘরে চলছে টহল ফাড়িটির অফিসের কাজ এবং আবাসিক। দু’টি টিনের ঘরের কাঠের বেড়া ও নীচের পাঠাতন অতি পুরাতন হওয়ায় নড়বড়ে হয়ে গেছে এবং কোথাও কোথাও ভেঙ্গে পড়েছে। নদী থেকে টহল ফাড়িতে ওঠার সিড়িটি ভাঙ্গা। নষ্ট হয়ে গেছে টহল দেওয়ার জেটি ঘরটি। দীর্ঘদিন নষ্ট ও অচল হয়ে পড়ে আছে ১টি টহল বোট। ছোট্ট একটি ডিঙি নৌকা দিয়ে চলছে সুন্দরবন অভ্যন্তরে টহলের কাজ। যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ন এবং কষ্ঠসাধ্য।
বন কর্মীরা জানান, কিছুদিন পূর্বে রাতে অফিস ঘরের বারান্দা থেকে পোষা কুকুরটিকে বাঘে নিয়ে গেছে। তারপর থেকে সবাই আতংকে আছি। অতি দ্রæত ঘর-বাড়ী মেরামত ও আশপাশের আবর্জনা পরিষ্কার করা দরকার। তারা আরোও বলেন, এখানে একজন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ ৬ জন বনপ্রহরি এ ফাড়িতে আছেন। শক্ত অবকাঠামো না থাকায় সবাই সবসময় আতংকে দিন রাত কাটাচ্ছে। রাতের বেলায় ছোট নৌকায় টহল দেয়া ভিষন ভয়ানক ও ঝুঁকিপূর্ন কাজ।
টহল ফাড়ির বোটম্যান বি,এম আমিরুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে। তিনি জানান, টহল ফাড়ির টহল বোটটি দীর্ঘদিন ধরে নষ্ট থাকায় নৌকাযোগে টহলে যেতে হচ্ছে। রাতের বেলায় নৌকায় টহল দেয়া ভিষন ভয়ানক ও ঝুঁকিপূর্ন কাজ।
পশ্চিম সুন্দরবনের টহল ফাড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও/সি) মোঃ আবু তাহের বলেন, একমাস হল এ টহল ফাড়িতে এসেছি। এসে দেখছি ফাড়ির ঘরবাড়ী, ওঠার সিড়ি, জেটি, টহল বোট সবই নষ্ট। ঘরটির বেড়া এবং পাঠাতন এত পুরাতন ও নড়বড়ে হয়েছে যে রাতে নিরাপদে ঘুমানো যায় না। এমন ঘরে হাতিয়ার রাখাও নিরাপদ নয় তাই সবসময় একটা আতংক কাজ করে। উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের গৃহ সংস্কারের বিষয়টি জানিয়েছি। যতদুর সম্ভব সাবধানে কাজ করার চেষ্টা করছি।
টহল ফাঁড়িটির অবকাঠামো সংস্কারের বিষয়ে মুঠোফোনে ডিএফও বসিরুল আল মামুনের সাথে কথা হলে। তিনি বলেন, আমি টহল ফাঁড়িটি কিছুদিন পূর্বে ভিজিট করেছি। অল্প দিনের মধ্যে এর জেটি, ওঠার সিড়িসহ ঘর মেরামত করা হবে। তিনি আরও জানান আগামীতে কৈলাশগঞ্জ টহল ফাড়িতে দ্বি-তল ভবন তৈরীর পরিকল্পনা রয়েছে।#