নেইমার-কাভানি-এমবাপেদের পিএসজিতে বুফন

0
282

স্পোর্টস ডেস্কঃ

বফুনের বয়স যখন ২৩ তখন ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস তাকে দলে ভেড়ায়। সেটা ২০০১ সালের ঘটনা। এরপর ১৭টি মৌসুম তিনি জুভেন্টাসে কাটিয়েছেন। ৬৫৬টি ম্যাচ খেলেছেন। টানা সাতটি লিগ শিরোপা জিতেছেন (সব মিলিয়ে ৯টি)। তিনবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলেছেন।

এই ক্লাবটিতে কত হাসি-কান্নার সাক্ষী হয়েছেন। ২০১৭-১৮ মৌসুম শেষে তিনি জানিয়ে দেন তিনি আর জুভেন্টাসে থাকছেন না। নতুন গন্তব্যে ছুটবেন। অবশেষে তার গন্তব্যের হদিস মিললো। ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে যোগ দিয়েছেন বুফন। যেখানে খেলছেন নেইমার দ্য সিলভা, এডিনসন কাভানি ও কালিয়ান এমবাপেরা। বিশ্বকাপ জয়ী ৪০ বছর বয়সী বুফনকে ১২ মাসের জন্য চুক্তিবদ্ধ করেছে পিএসজি।

পিএসজিতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে বুফন বলেন, ‘আমি জানি পিএসজির স্বপ্ন কী এবং তাদের সমর্থকরা হৃদয়ে কী লালন করে। ভবিষ্যতে এই ক্লাবটিকে তার লক্ষ্য পূরণে আমি আমার সর্বশক্তি, সব রকমের অভিজ্ঞতা ও জয়ের অতৃপ্ত তৃষ্ণা দিয়ে চেষ্টা করব। আমার ক্যারিয়ারে এই প্রথম আমি আমার দেশ ছাড়ছি। একটি প্রোজেক্ট আমাকে এই কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে উৎসাহিত করেছে।’

বুফনের প্রশংসা করে পিএসজির প্রেসিডেন্ট নাসেল আর খেলাফি বলেন, ‘তার অভিজ্ঞতা, তার উচ্চাকাঙ্খা, ব্যক্তিত্ব তাকে বিশ্বের সবচেয়ে প্রশংসা প্রাপ্ত ও সম্মানীয় ফুটবলারে পরিণত করেছে। তার আগমনে আমাদের উচ্চাকাঙ্খা আরো বেড়ে গেল। ভবিষ্যতে আমরা যেটা অর্জন করতে চাই সেই চাওয়াটা আরো শক্তিশালী হল।’

বুফন শুধু জুভেন্টাসেরই নয়, ইতালির হয়েও সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছেন। সুইডেনের কাছে হেরে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হওয়ার পর তিনি অবসর ঘোষণা করেন। তার আগে ইতালির হয়ে সর্বোচ্চ ১৭৬ ম্যাচ খেলেছেন তিনি।

ইতালির হয়ে তিনি ২০০৬ বিশ্বকাপ জিতেছেন। তবে কখনো উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জেতা হয়নি। ২০০৩ সালে ফাইনালে উঠলেও এসি মিলানের কাছে হেরে যায় বুফনদের জুভেন্টাস। এরপর ২০১৪ সালের ফাইনালে বার্সেলোনার কাছে ও ২০১৭ সালের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা অধরাই থাকে বুফনের।