নারীদের অধিকার আদায় করে নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

0
335

অনলাইন ডেস্ক : নানান বাধা সত্ত্বেও প্রতিটি পর্যায়ে সরকার নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমরা যতই নারীর অধিকার নারীর বলে স্লোগান দেই। অধিকার তো আর হেঁটে আসবে না। নারীর অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই মেয়েদের বসে থাকলে হবে না। নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ উপলক্ষে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নারীদের অধিকার আদায় করে নিতে হবে। অর্থনৈতিক সক্ষমতা অর্জন করতে হবে তাদের। স্বাবলম্বী হতে হবে নিজেদের। তাহলেই নারীদের অধিকার নিশ্চিত হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রতিটি কর্মক্ষেত্রে নারীদের প্রাধান্য দিচ্ছি। আমাদের উচ্চ আদালতে কোনো নারী ছিল না, আমি এসে সেই উদ্যোগ নিয়েছি। আমি এসে নারীদের পুলিশের এসপি পদে নিয়োগ দিয়েছি। এছাড়া প্রতিটি ক্ষেত্রে নারী নেতৃত্বের স্থান করে দিয়েছি। আমরা মাতৃত্বকালীন ছুটি বৃদ্ধি করে ছয় মাস করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, আমাদের মেয়েরা খেলাধুলায় এখন আর পিছিয়ে নেই। আমাদের মেয়েরা এখন এভারেস্টেও যাচ্ছে। আমরা নারী নেতৃত্ব গ্রাম থেকে তৃণমূল পর্যায়ে আনার চেষ্টা করছি।

৭১’ এর যুদ্ধকালীন পরবর্তী স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যখন দেশ স্বাধীন হয় তখন আর্মি ক্যাম্প থেকে অনেক নারীকে উদ্ধার করা হয়। তাদের চিকিৎসা শেষে বিয়ে দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বীরাঙ্গনা এসব নারীদের মধ্যে অনেকে পিতামাতা ও বাড়ি ঘর ছাড়া ছিলেন। তখন তাদের বিয়ের কাবিনে পরিচয় দেয়ার সময় তিনি (বঙ্গবন্ধু) কাজীদের বলেছিলেন ‘লিখে রেখ তাদের বাবার নাম বঙ্গবন্ধু, বাড়ি নম্বর ৩২’।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ৫ জন নারীর হাতে ‘জয়িতা পুরস্কার’ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি।