নাটকীয় এল ক্লাসিকো ড্রয়ে সমাপ্তি

0
325

স্পোর্টস ডেস্ক :

এত নাটক এক ম্যাচেই? কী না হলো এই ম্যাচে? মৌসুমের শেষ এল ক্লাসিকোতে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি উত্তেজনা নিয়ে হাজির হলো ক্যাম্প ন্যুয়ে।

সার্জিও রবার্তোর লাল কার্ডে ১০ জনের দলে পরিণত হওয়া, প্রতিশোধ নিতে গিয়ে মেসির হলুদ কার্ড পাওয়া, গোল মিসের মহোৎসব। বলে শেষ করা যাবে না।

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় ক্লাব ম্যাচে আজ রাতে (৭ মে) মুখোমুখি হয়েছিলো স্প্যানিশ ক্লাব ফুটবলের দুই জায়ান্ট বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ। একে এল ক্লাসিকো, তাও আবার বার্সা কিংবদন্তি আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার শেষ এল ক্লাসিকো ম্যাচ। ক্যাম্প ন্যু এমনিতেই আবেগে থরথর, তাতে শুরু থেকেই মাঠে কাঙ্ক্ষিত উত্তেজনা। ম্যাচের শুরুতে নাটকীয় সিদ্ধান্ত। রিয়াল একাদশে বাতিলের খাতায় যেতে বসা গ্যারেথ বেল মূল একাদশে।

বিদায়ী এল ক্লাসিকো বলেই হয়তো বার্সেলোনা একাদশে অধিনায়ক ইনিয়েস্তার উপস্থিতি। তবে ম্যাচের প্রথম আলো কেড়ে নেন সুয়ারেজ। ম্যাচের মাত্র সাড়ে নয় মিনিটেই রবার্তোর দুর্দান্ত পাস থেকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে গোলমুখ উন্মুক্ত করেন উরুগুয়ের তারকা ফুটবলার সুয়ারেজ। তবে খেলার আসল চেহারা ফুটে ওঠে এরপরই। শুরুটা করেন রিয়ালের ডিফেন্ডার নাচো।

সুয়ারেজকে কড়া ট্যাকল করে হলুদ কার্ড দেখেন নাচো। এর কিছুক্ষণ পরেই গোল করার সুযোগ হাতছাডা করেন সুয়ারেজ। তবে রিয়াল খুব দ্রুতই ফিরে আসে। এবার গোল করেন রোনালদো। বেনজেমার নিখুঁত পাসে হালকা পা লাগিয়ে গোলের খাতা খোলেন পর্তুগিজ তারকা। লিগে এটি তার ২৫তম গোল। শেষ ৯ ম্যাচে ১৭তম গোল। গোল করে কোনো উত্তেজনা বা উল্লাস প্রকাশ থেকে দূরে থাকেন সি আর সেভেন। রিয়ালও উদযাপন করেনি।

এরপরের গল্প শুধু গোল মিসের। বার্সার আলবা, মেসি আর রিয়ালের এক রোনালদোরই কমপক্ষে তিন গোল মিস। সেই সাথে হলুদ কার্ডের ছড়াছড়ি। রিয়ালের ভারনেকে দিয়ে শুরু এরপর সুয়ারেজ আর রিয়াল অধিনায়ক রামোস ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েন। হাতাহাতিও হয় সামান্য। রেফারি দুজনকেই হলুদ কার্ড দেখান। এর প্রতিশোধ নিতেই কিনা কিছুক্ষণ পর রামোসকে কড়া ফাউল করে বসেন ঠাণ্ডা মাথার মানুষ মেসি। ফল এবার মেসির ভাগ্যে হলুদ কার্ড। চেহারা দেখে সবাই বুঝে গেছে প্রিয় বন্ধু সুয়ারেজকে ফাউল করার প্রতিশোধ নিয়েছেন মেসি।