নভেম্বরে ১০৭টি ধর্ষণের ঘটনা

0
266

টাইমস ডেস্ক:
চলতি বছরের নভেম্বর মাসে ১০৭টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এর মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৩ জন। আর ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ২ জনকে। এ ছাড়া ১১ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে।
মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় লিগ্যাল এইড উপপরিষদে সংরক্ষিত ১৪টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে এ তথ্য দিয়েছে সংগঠনটি। আজ মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে নভেম্বর মাসের নির্যাতনের পরিসংখ্যান জানিয়েছে সংগঠনটি।
মহিলা পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে ৪২৭ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে। অপহরণের ঘটনা ঘটেছে ২৩টি। বিভিন্ন কারণে ৪২ জন নারী ও কন্যাশিশুকে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে চারজনকে।
তথ্য বলছে, যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হওয়া ২১ জনের মধ্যে ৯ জনকে হত্যা করা হয়েছে। উত্ত্যক্তের শিকার হয়েছেন ১৭ জন, এদের মধ্যে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন ৪ জন। অন্যান্য কারণে মাসটিতে ৪৯ জন আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন। ২৯ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ৬০টি বাল্যবিবাহের চেষ্টা প্রতিরোধ করা হয়েছে এবং বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে চারজন।
মাসটিতে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে ১৫ জন। বেআইনি ফতোয়ার ঘটনা ঘটেছে তিনটি। অ্যাসিডদগ্ধের শিকার দুজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে।
গত মাসে পরিষদের এক প্রতিবেদনে চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে মোট ১ হাজার ৭৩৭টি ধর্ষণসহ নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে বলে বলা হয়েছিল। অথচ গত বছর ১২ মাসে সংখ্যাটি ছিল ১ হাজার ৪৫৩টি। নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধের অভাব, পিতৃতন্ত্র ও বৈষম্যমূলক আইন নারী নির্যাতন বাড়ার পেছনে দায়ী বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল।