দৌলতপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী খুমেক থেকে গ্রেফতার

0
250

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন মামলার রুহুল আমিন নামে এক ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসমীকে দীর্ঘ দুই বছর পর আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বিকাল ৫ টায় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে দৌলতপুর থানার পুলিশ তাকে আটক করে প্রিজন সেলে রেখেছে।
আটক রুহুল আমিন মুরাদ দৌলতপুর কেশবলাল রোডের বেলায়েত হোসেনের পুত্র। গত ২০১৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর রহুল আমিনের স্ত্রী খানজাহান আলী থানার শিরমনি এলাকার শেখ আফজালের মেয়ে আফসানা মিমি তার স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক, শারিক নির্যাতন, বিভিন্ন নাম ব্যবহার করে কয়েকটি বিবাহর অভিযোগ এনে খানজাহান আলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৮, তারিখ ১৭/১২/২০১৭। এ ঘটনায় রুহুল আমিনের নামে আদালত থেকে গত বছর ১২ সেপ্টেম্বর ওয়ারেন্ট জারী হয়। এরপর গত বছর ১৯ সেপ্টেম্বর আবারো ওয়ারেন্ট জারী করে আদালত, যার এসি প্রসিকিউশন প্রসেস নং ৪১৯/১৯। ওয়ারেন্টটি ডিসি নর্থ কার্যলয়ে হতে দৌলতপুর থানায় পাঠানো হয়। তিন মাসের অধিক সময় পার হলেও পুলিশ অজ্ঞাত কারনে তাকে গ্রেফতার করেনি বলে ভুক্তভোগিরা জানায়। গত ৯ জানুয়ারী রুহুল আমিন দৌলতপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করলেও তাকে আটক করতে সক্ষম হয়নি পুলিশ। এ বিষয়ে গতকাল প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন কেশবলাল রোডের এলাকাবাসী। এ কারনে দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) সৈয়দ মোশারেফ হোসেন গতকাল খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে আটক করে। ওসি (তদন্ত) সৈয়দ মোশারেফ হোসেন রুহুল আমিনকে আটকরে ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে রুহুল নামে নারী ও শিশু মামলার আসমীকে আটক কওে প্রিজন সেলে রাখা রাখা হয়েছে, তাকে আদালতে পাঠানো হবে।