দেবহাটায় বিক্রয়কৃত জমি পুন:দখলের অপচেষ্টার অভিযোগ

0
394

টাইমস প্রতিবেদক : দেবহাটার সখিপুর ইউনিয়নের ধোপাডাঙ্গা এলাকায় বিক্রয়কৃত জমি পুন:রায় দখলে আনতে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে বিভিন্ন মহলে দৌঁড় ঝাপ করার অভিযোগ উঠেছে আব্দুল ওহাব গাজীর বিরুদ্ধে। ঘটনার বিবরনে জানা গেছে, ধোপাডাঙ্গা গ্রামের মৃত রহিম সরদার ১৯৬৮সালে ৭৮১ দাগের ১একর ৭১শতক জমি ক্রয় করে ধোপাডাঙ্গা মৌজার সিএস ৪৯ নং খতিয়ানে লিখিত ৫.১৬ ক্রয় করে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগদখল করে আসছিলেন। কিন্তু মৃত. কাঙ্গাল গাজীর পুত্র ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক আব্দুল ওহাব বাদী হয়ে গত ইংরেজি ২৯/০৩/২০১৫ সালে সাতক্ষীরা ল্যান্ড সার্ভে আদালতে ৮৩৪ নং মামলা করে। এই মামলায় মহাপরিচালক ভূমি, জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা, দেবহাটার সহকারী ভূমি কর্মকর্তাসহ ৪১জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে। ১একর ৭১শতক জমির ভিতরে ১৬শতক জমির ১১শতকের মধ্যে আব্দুল ওহাব গাজীর জমি রয়েছে বলে দাবি করে দায়েরকৃত মামলাটি এখনো চলমান রয়েছে। এবিষয়ে বর্তমান জমিটির মালিক মৃত.আব্দুর রহিমের পুত্র আব্দুস সামাদ জানান, পৈত্রিক সূত্রে ১৯৬৯সালের দলিলমূলে হোসেন আলীর পুত্র রাজাউল্লাহ, আহছাউল্লাহ, মোখছেদ আলীর কাছ থেকে ক্রয়কৃত ৫শতক জমি ক্রয় করে। কিন্তু গত বুধবার ২৭ ডিসেম্বর বিকালে ধান আনতে গেলে আব্দুল ওহাবের স্ত্রী মমতাজ বেগম তার(আব্দুস সামাদ)এর হাতে কাচির কোপ মারে। ২য় বার কোপ মারার আগে মমতাজের কাচির আঘাত প্রতিরোধ করে চিৎকার করলে স্থানীয়রা ছুটে আসে। পরবর্তীতে আব্দুল ওহাব ও স্ত্রী মিলে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে মমতাজ ও প্রতিবন্ধী মেয়ে মাশকুরাকে দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি না করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এরপর সাংবাদকর্মীদের ভুল বুঝিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করিয়ে আমাকে এবং আমার ভাই সাইফুল ইসলামকে আইনের চোখে দোষি করে মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে এবং ক্রয়কৃত জমি দখলে নিতে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি। বিষয়টি নিয়ে আব্দুল ওহাবের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের পৈত্রিক সম্পতি জোরপূর্বক দখল করার চেষ্টা করছেন তারা। তার বিরুদ্ধের আনা অভিযোগ মিথ্যা বলে জানান তিনি।