দেবহাটায় পৈত্রিক সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগে মারপিটের শিকার ভূক্তভোগী পরিবার

0
166

দেবহাটা প্রতিনিধি:
উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নে এক চোরাকারবারী কতৃক নওয়াপাড়া গ্রামে পৈত্রিক সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় অভিযোগ করে উল্টো মারপিটের শিকার হয়েছেন ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। বর্তমানে বিচারের আসায় নিজেদের শেষ সম্বল টুকু ধরে রাখতে পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন ঐ অসহায় পরিবার। তবে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা সমাজের প্রভাবশালী হওয়ায় বীরদর্পনে রয়ে গেছেন।
ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্য নওয়াপাড়া গ্রামের মৃত আহম্মদ আলীর ছেলে আব্দুল জলিল গাজী জানান, আমার পিতার ওয়ারেশ সূত্রে নওয়াপাড়া মৌজার এস.এ খতিয়ান-২৭১ ও ২৭২, হাল-১৭৬, এস.এ দাগ নং- ৩৩৭, ৩৩৮ ও ৩৭০, হাল দাগ নং-৮৫৮, ৮৫৯ ও ৮৬০ মোট ১.১৮ একর মধ্যে ৩৯ শতক জমি আমরা ভোগ দখল করে আসছিলাম। কিš‘ চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারী তারিখে তফসিলকৃত জমিতে মোহাম্মাদালীর পুত্র বিশিষ্ট চোরাকারবারী আব্দুল মালেক, তার ভাই আব্দুল খালেক, আব্দুল আজিজ সহ কয়েক জন মিলে জমিতে অনাধিকার প্রবেশ করে দখলের চেষ্টা করে। বিষয়টি নিয়ে দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ দায়ের করি। তিনি আমাদের বৈধ কাগজপত্র দেখে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করেন। বিষয়টি নিয়ে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ তৎকালিন এসআই দরবেশ ফকিরকে নির্দেশ প্রদান করেন। কিছুদিন পর এসআই বদলী হয়ে গেলে পুনরায় দখলের চেষ্টা চালায় তারা। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় তারা আমাদের জমি থেকে গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে তারা। আমরা বাধা দিতে গেলে উল্টো তাদের হাতে মারপিটের শিকার হই। বর্তমানে তারা আমাদের মাদক সহ বিভিন্ন অবৈধ জিনিসপত্র দিয়ে ধরিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। আমরা নিরূপায় হয়ে পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছি।
এবিষয়ে অভিযুক্ত আব্দুল মালেকের কাছে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার ভাই ঐ জমি কিনেছে তার বেশি বলতে পারব না। তিনি চোরাচালান করেন কি না জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে সংযোগটি কেটে দেন।