দেবহাটায় চেয়ারম্যান রতনকে নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে আ.লীগের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

0
160

আব্দুর রব লিটু: সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফারুক হোসেন রতনের সম্পর্কে দূর্ণীতি, অনিয়ম, সরকারী প্রকল্পের অর্থ লোপাটের মিথ্যা তথ্য সম্বলিত লিফলেট রাতের আঁধারে অলিতে গলিতে সাঁটিয়ে দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। সোমবার বিকেল ৪টায় সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজেনে উপজেলার ঈদগাহ বাজার এলাকায় উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতনের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিবর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব আল ফেরদাউস আলফা, ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা আকবর আলী, দীপক কুমার প্রমুখ।
এসময় বক্তারা বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন রতনের প্রতিপক্ষরা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের উদ্দেশ্যে রাতের আঁধারে রতনের সম্পর্কে মিথ্যা দূর্নীতি, অনিয়ম ও সরকারী প্রকল্পের অর্থ লোপাটের কাল্পনিক তথ্য সম্বলিত শতশত লিফলেট ইউনিয়নের বিভিন্ন অলিতে গলিতে সাঁটিয়ে দিয়ে ফয়দা লোটার চেষ্টা করেছেন। তারা রতনের জনপ্রিয়তায় ঈর্শান্বিত হয়ে পরিকল্পিতভাবে রাতনকে নির্বাচনে পরাজিত করতে নোংরা খেলায় মেতে উঠেছেন। লিফলেটে উল্লেখিত যাবতীয় তথ্য মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত উল্লেখ করে বক্তারা আরো বলেন, বর্তমান সময়ে সখিপুর ইউনিয়নে রতনের জনপ্রিয়তা কতটা বেশি তা এই বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে সর্বস্তরের মানুষের স্বতষ্ফূর্ত অংশগ্রহনের মাধ্যমে ফুঁটে উঠেছে। লিফলেট ছড়ানো দূর্বৃত্তদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, আপনারা মিথ্যাকে পুঁজি করে নির্বাচনের মাঠে ফয়দা লোটার চেষ্টা বাদ দেন। আপনারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন বলেই রতনের মতো একজন সৎ, যোগ্য ও মুজিবপ্রেমি আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে রাতের আঁধারে অপপ্রচারের নোংরা খেলা শুরু করেছেন। বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে বক্তারা অপপ্রচারে লিপ্তদের আইনের আওতায় আনারও দাবী জানান।
এসময় শেখ ফারুক হোসেন রতন বলেন, ২০১৩ ও ২০১৮ সালে যারা দুই দুই বার আমাকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছিল; তারা, তাদের উত্তরসূরী ও সহযোগীরা আসন্ন নির্বাচনে আমার বিরুদ্ধে প্রার্থীতা ঘোষনা দিয়েছে। কিন্তু ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ ও আওয়ামী লীগ সহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা আমার পাশে আছে। তিনি বলেন, জনগনই আমার সকল শক্তির উৎস্য। নির্বাচনকে ঘিরে আমার জনপ্রিয়তায় ওইসব জনবিচ্ছিন্ন প্রতিপক্ষরা ঈর্শান্বিত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। বর্তমানে তারা দিশেহারা। তাই তারা আমার বিরুদ্ধে নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে। রতন বলেন, নোংরা খেলায় মেতে উঠা ওইসব জনবিচ্ছিন্নদের আমি ভয় করিনা। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে গতবার নৌকার মাঝি বানিয়ে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছিলেন, সেসময় আপনারা আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে শেখ হাসিনার মুখ উজ্জল করেছিলেন। গত পাঁচ বছরে আমি ইউনিয়নে নজির বিহীন উন্নয়ন করে আপনাদের সুখ, দুঃখের সারথি হয়ে সবসময় পাশে থেকেছি। আশাকরি এবারও এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকার মনোনয়ন দিবেন এবং আপনারা আমাকে বিজয়ী করতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবেন।
তার সম্পর্কে অপপ্রচারে লিপ্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি। একইসাথে আগামী নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে ওইসব জনবিচ্ছিন্নদের বয়কট করতে ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষের প্রতি আহ্বানও জানান ফারুক হোসেন রতন।
উল্লেখ্য, গত বুধবার দিবাগত ভোররাতে সখিপুরের অলিতে গলিতে চেয়ারম্যান রতনকে নিয়ে মিথ্যা তথ্য সম্বলিত অপপ্রচার মুলোক শতশত লিফলেট সাঁটিয়ে দেয় তার নির্বাচনী প্রতিপক্ষ ও দূর্বৃত্তরা।