দেবহাটায় আওয়ামীলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

0
415

আব্দুর রব লিটু, দেবহাটা:
দেবহাটায় আওয়ামীলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কেক কাটা ও আলোচনা সভায় আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বলেন, শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারায় দেশ আজ উন্নত দেশের দিকে ধাবিত হচ্ছে। বর্তমান সরকার দেশ ও জাতির উন্নয়নে যেভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তার সুফল আমরা প্রত্যেকেই ভোগ করছি। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের উন্নয়নের রোল মডেল। দেশের ধারাবাহিক উন্নয়ন অব্যাহত রেখে তিনি দেশের প্রতিটি সেক্টরকে নানামুখি উন্নয়ন করে করে চলেছেন। তিনি বছরের শুরুতেই ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে বই, দেশে ব্যাপী নিরাবিচ্ছন্ন বিদ্যুত, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন সহ কৃষি, মৎস্য খাতে আমুল পরিবর্তন করে চলেছেন। বিভিন্ন বাধা বিপত্তি পার করে বর্তমান ক্ষমতাশীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আজ ৭০ বছরে পদার্পণ করেছে। দলটি ১৯৪৯ সালে ২৩ শে জুন রোজ গার্ডেনে মরহুম মাওলানা হামিদ খান ভাসানীকে প্রধান করে যাত্রা শুরু করা এ দলটি চারবার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পায়। বর্তমান দলটির সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাই এদেশের প্রধান মন্ত্রী। তিন বার প্রধান মন্ত্রী নির্বাচিত হয়ে তিনি দেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করে চলেছেন। তার নের্তৃত্বে উন্নয়ন গুরোর মধ্যে বিনামূল্য বই বিতরন, সমুদ্র সীমানা বিজয়, ঢাকাতে ফ্লাইওভার নির্মাণ, নারীর ক্ষমতায়ন, উন্নয়নশীল দেশে উন্নীতকরন, ডিজিটাল স্মাটকার্ড প্রদান, রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দান, ছিটমহল সমস্যার সমাধান, পদ্মা সেতুর মত বৃহৎ সেতু নির্মান, মেট্রো রেল নির্মান, শিক্ষাথীদের উপবৃত্তি প্রদান, মেডিকেল কলেজ স্থাপন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপন, গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ, বয়স্ক ভাতা প্রদান, বিধবা ভাতা প্রদান, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা প্রদান, মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান, ডি.জি.ডি কার্ড প্রদান, ভি.জি.এফ কার্ড প্রদান, স্বামী পরিত্যক্তা ভাতা প্রদান, জঙ্গী দমন, মাতৃত্বকালীন ছুটি বৃদ্ধি, শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধি সহ বিভিন্ন প্রকল্প। আওয়ামীলীগের জন্ম হয়েছিল বলে আজ এসকল উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। তাই শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সকল নেতাকর্মীদের মধ্যে দ্বিধাদন্দ্ব ভুলে একযোগে কাজ করতে হবে। এসময় তিনি আরো বলেন, যারা ৭১ সালের এদেশের স্বাধীনতা হরন করতে পাকিস্থানীদের সাথে হাত মিতলিয়েছিল, যারা সেদিন বঙ্গবন্ধুকে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা ব্যাতীত স্ব-পরিবারে হত্যা করেছিল, তারাই ২০১৩ সালে এদেশকে পাকিস্থান বানিয়ে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল তারা এখনো খ্যান্ত হয়নি। তারা বর্তমানে বাংলাদেশের এসকল উন্নয়নের অগ্র যাত্রাকে রুখে দিতে আওয়ামীলীগের ভিতরে ঢুকে ষড়যন্ত্র করে চলেছে। তাদের কোন ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। আপনারা একত্রিত থাকলে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বার বার বিজয়ী হয়ে এদেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসবে এবং প্রধান মন্ত্র জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে এদেশ একটি উন্নত দেশে পরিণত হয়ে বিশ্বের মানচিত্রে আরো বড় পরিসরে স্থান পাবে। “সংগ্রাম ও অর্জনে গৌরবময় পথচলার ৭০ বছর, ‘গৌরবের অভিযাত্রায় ‘জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে রবিবার বিকাল ৫টায় পারুলিয়া শহীদ আবু রায়হান চত্বরে উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে কেক কাটার মধ্য দিয়ে ৭০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তবে এসব কথা বলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবর রহমানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক কুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুল হক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. স.ম গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সদর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক আনারুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার আমজাত হোসেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্নুর, সাধারণ সম্পাদক বিজয় ঘোষ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুব আলম খোকন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম সোহাগ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য আল ফেরদৌস আলফা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোসলেহ উদ্দীন মুকুল, শরৎ চন্দ্র ঘোষ, নাজমুস শাহাদাৎ নফর বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আজহারুল ইসলাম, শেখ মোনায়েম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আরশাদ আলী, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রউফ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শরীফ বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দুলাল ঘোষ, মাহবুবুল হক ফয়জুল, দেবহাটা প্রেসক্লাব ও সখিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রব লিটু, কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক বিধান চন্দ্র বর্মন, পারুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, নওয়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহমুদুল হক লাভলু, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন সাহেব আলী, দেবহাটা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুলিয়া ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আছাদুল ইসলাম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান কবির, সাবেক উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন আহবায়ক ও ইউপি সহ বিভিন্ন পর্যায়ে সাধারণ মানুষ ।