দূর্নীতির অভিযোগে যোগিপোল ইউপি চেয়ারম্যান আনিছকে অপসারণ

0
282

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার ৬নং যোগিপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আনিছুর রহমানের পদটি শুন্য ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানের বিরুদ্ধে দূর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়ে ইউনিয়নের প্রায় সকল সদস্যের লিখিত অভিযোগ জোরালোভাবে প্রমানিত হওয়ার পর সকল আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্থানীয় সরকার পল্লী ও সমবায় মন্ত্রণালয় কর্তৃক চেয়ারম্যান পদটি শুন্য ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারীর দশ দিন পর ২১ ডিসেম্বর সোমবার দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চেয়ারম্যান আনিসকে অপসারণপূর্বক শুন্য ঘোষনা করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এদিকে, ক্ষমতার অপব্যবহার করে দূর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগে অপসারণকৃত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংগঠনের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করায় দল থেকে বহিষ্কার এবং সম্পদের অনুসন্ধ্যান করে আইনানুক ব্যবস্থার দাবী উঠেছে খোদ নিজ দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে থেকে।
যোগিপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ‘জমি আছে ঘর নাই’ প্রকল্পে অনিয়ম, ভিজিডি কার্ডসহ সরকারি অনুদানের তালিকায় অনিয়ম, ইউনিয়নের হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স বিক্রয়, জমি নিবন্ধনসহ বিভিন্ন আয়ের উৎস থেকে প্রাপ্ত অর্থের কোন হিসাব সদস্যদের না দেওয়ায় এবং ব্যস্ততা দেখিয়ে অ-দাপ্তরিক স্বাক্ষর ও বিতর্কিত ব্যক্তিদের দিয়ে সরকারি কাজ করানোসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা সদস্যসহ মোট ১২ জন সদস্যের মধ্যে ১০ জন ইউপি সদস্য একযোগে দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গত ৪/৬/২০ তাং লিখিত অনাস্থা দেয়। অন্যদিকে তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।
দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি অবহিত হয়ে ইউনিয়ন পরিষদ আইনের ৩৯ (৩)ধারা অনুযায়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানকে গত ২০/৭/২০ তারিখ কারণ দর্শানো নোটিশ দেন। চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমান গত ২৮/৭/২০ নোটিশের জবাব দেন। জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় গত ২৬/৮/২০ তারিখ দিঘলিয়া উপজেলায় উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আনিত লিখিত অভিযোগের শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। শুনানীতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। ইউনিয়ন পরিষদ আইনের ২০০৯ এর ৩৯(৫) ধারা অনুযায়ী নিযুক্ত কর্মকর্তা বিশেষ সভার মধ্যে দিয়ে আইনগত দিক সম্পন্ন করে খুলনা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে অবহিত করেন।
দীর্ঘ ৬ মাস পর স্থানীয় সরকারি ও সমবায় মন্ত্রণালয় গত ১০ ডিসেম্বর এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারী করে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে যোগিপোল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগসমুহ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় এবং বিশেষ সভায় উস্থাপিত অনাস্থা প্রস্তাবটি দুই তৃতীয়াংশের বেশী ভোট গৃহীত হওয়ায় স্থানীয় সরকার(ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৯(১৩) ধারার বিধান অনুযায়ী পদটি একই আইনের ৩৫(১) (চ) ধারা অনুযায়ী শুন্য ঘোষণা করে ৩৫(২) ধারা মোতাবেক শুন্য ঘোষনা সংক্রান্ত গেজেট বিজ্ঞপ্তির।
মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন পেয়ে দিঘয়িলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুল আলম জারিকৃত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে ‘যেহেতু স্থানীয় সরকার(ইউনিয়ন পরিষদ)আইন-২০০৯এর ৩৯(১৩) ধারা বিধান অনুযায়ী সরকার কর্র্র্তৃক জনস্বার্থে অনাস্থা প্রস্তাবটি অনুমোদিত হওয়ায় ৬নং যোগিপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমান এর পদটি একই আইনের ৩৫(১)(চ) ধারা অনুযায়ী শুন্য ঘোষনা করা হলো। এ বিষয়ে গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে। একই সাথে প্রাক্তন চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানকে পত্র প্রাপ্তির তিন দিনের মধ্যে প্যানেল চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।
এদিকে থানা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতা-কর্মী বলেন যোগেীপোল ইউনিয়ননের চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানের বিরুদ্ধে জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে অনিয়মসহ নানা দুর্নীতির অভিযোগ উঠার পর দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হওয়ায় এ পরিস্থিতিতে মহানগর আওয়ামীলীগের মৌখিক নির্দেশে থানা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক ভাবে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করে। কমিটি তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগের সত্যতা খুজে পায়। বিষয়টি নিয়ে শিরোমণি দলীয় কার্যালয়ে বৈঠক করে অভিযোগের বিষয়ে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহনে রেজুলেশনের কথা উঠলেও পরে বিষয়টি সেখানে স্থগিত হয়ে যায়। বৈঠকে উপস্থিত কমিটির এক সদস্য বিষয়টি স্বীকার করে বলেন যেহেতু মন্ত্রণালয় থেকে তার দুর্নীতির বিষয়ে প্রমান সাপেক্ষে চেয়ারম্যান পদটি শুন্য ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারী করেছে এখন আর আমাদের বলার কিছু নাই। এদিকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন জারী এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্র্তৃক গেজেট প্রকার করায় খানজাহান আলী থানার অন্তরগত ৩৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হওয়ায় দূর্নীতির অভিযোগে অপসারিত চেয়ারম্যান শেখ আনিছুর রহমানকে দল থেকে বহিষ্কার এবং তার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধানসহ আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের কাছে লিখিত দেবেন বলে সংগঠনটির পক্ষ থেকে জানিয়েছেন।