দুর্যোগ মোকাবেলায় সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে সকলকে : মৎস্য মন্ত্রী

0
460

তথ্যবিবরণী :
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ বলেছেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে সকলকে। বাংলাদেশ দুর্যোগ প্রবন দেশ। দুর্যোগকে ভয় নয়, সাহস দিয়ে মোকাবেলা করতে হবে। দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ অনেক সক্ষমতা অর্জন করছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে।

তিনি শুক্রবার বিকেলে খুলনার একটি অভিজাত হোটেল-এ আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কমিউনিটি স্বেচ্ছাসেবকদের সার্টিফিকেট এবং পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবুর রহমান এদেশের দরিদ্র এবং খেটে খাওযা মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুচিন্তিত একটি পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, এ প্রশিক্ষণ জ্ঞান বা¯তব জীবনে কাজে লাগাতে হবে এবং সমাজে তা প্রয়োগ করতে হবে। নারী-পুরুষ এখন কোন পার্থক্য নেই। নারীউন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে রোল মডেল। পুরুষের পাশাপাশি সকল ক্ষেত্রে নারীরা আজ এগিয়ে যাচ্ছে।

দুঃস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ মাহমুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন কেসিসি’র প্যানেল মেয়র হাফিজুর রহমান হাফিজ, জেলা ত্রাণ ও পূনর্বানস কর্মকর্তা আজিজুল হক জোয়ার্দ্দার এবং ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মোঃ রেজাউল করিম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী, এ্যাড. মাছুম বিল্লাহ এবং স্বেচ্ছাসেবক প্রতিনিধিরা। প্রেজেন্টশনের মাধ্যমে প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন ডিএসকের প্রকল্প ব্যবস্থাপক সঞ্জিব সরকার। দুঃস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্র (ডিএসকে) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

পরে প্রধান অতিথি খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ৩, ৫, ১৭ ও ১৮ নম্বর ওয়াডের্র একশত জন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কমিউনিটি স্বেচ্ছাসেবকদের সার্টিফিকেট এবং পরিচয়পত্র প্রদান করেন।

বিকেলে মন্ত্রী ফুলতলার জামিরা বাজার বণিক সমিতির সদস্যদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন।
সন্ধ্যায় মন্ত্রী দক্ষিনডিহী গ্রামে মহানামযজ্ঞানুষ্ঠানে এবং দামোদর সাহাপাড়া গ্রামে মহানামযজ্ঞার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। এসময় তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টাšত স্থাপন করছে সরকার। বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অত্যন্ত সুদৃঢ়। বিভিন্ন ধর্মের মানুষ পারস্পরিক সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ থেকে স্ব স্ব ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব শান্তিপূর্ণভাবে পালন করছে। সংবিধানে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমানাধিকার সুনিশ্চিত করা হয়েছে।