দাকোপে বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরী নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

0
50

নিজস্ব প্রতিবেদক :
খুলনার দাকোপ উপজেলার লাউডোব বানীশান্তা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নৈশপ্রহরী পদে জনবল নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অশোক কুমার সরকার ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সমারেন্দ্রনাথ সরকার স্বেচ্ছাচারিতা করে সাত লাখ টাকার বিনিময়ে এক চাকুরীপ্রত্যাশিকে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করে।

এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে উত্তর বানীশান্তা গ্রামের মৃত গোপাল চন্দ্র সরকারের ছেলে সুভাষ সরকার খুলনা জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সুত্রে, লাউডোব বানীশান্তা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অশোক কুমার সরকার ও বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সমারেন্দ্রনাথ সরকার নৈশপ্রহরী পদে একজন জনবল নিয়োগ দেয়। ওই নিয়োগে মোট ৯জন পরিক্ষার্থী গত ৩০ মার্চ অনুষ্ঠিত নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেন। এরমধ্যে হিরক সরকার নামের এক পরীক্ষার্থীকে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সাত লাখ টাকার বিনিময়ে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করে। এতে ওই চাকুরিপ্রত্যাশীর থেকে মেধাবী পরিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ফলাফল সম্পর্কে জানতে চাইলেও নিয়োগ বোর্ডের সদস্যরা জানায়নি। তিনি ওই পদে পুনরায় নিয়োগ এবং অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সমারেন্দ্রনাথ সরকারের মুঠোফোনে কল দিলে তার স্ত্রী ধরে বলেন তিনি ভারতে আছেন। এজন্য তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক অশোক কুমার সরকার খুলনাটাইমসকে বলেন, হিরনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, তবে তা অর্থের বিনিময় নয়। পরীক্ষার্থীদের ফলাফল জানানো হয়েছে এবং ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্যকে নিয়োগ সম্পর্কে অবগত করা হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা পরিতোষ কুমার আউলিয়া বলেন, ওই বিদ্যালয়ের নৈশপ্রহরী পদে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি। তবে বিধিমালা মোতাবেক স্বচ্ছতার সঙ্গে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখন যেহেতু জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ হয়েছে, সেহেতু অধিকতর তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ করা হবে।