দাকোপে নারী নগ্নতা দেখিয়ে টাকা আদায়

0
570

দাকোপ প্রতিনিধি :খুলনার দাকোপ উপজেলার বানিশান্তা ইউনিয়নে নারী নগ্নতা (অশ্লীল নাচ) দেখিয়ে টাকা আদায় করছেন পূজা অপেরার পরিচালক পিযুষ কান্তি মন্ডল। অভিযোগ উঠেছে অপেরার সাথে জড়িত রয়েছে স্থানীয় আ’লীগ নেতা, প্রশাসন ও পুলিশ।

জানা গেছে, গত ৫ মে থেকে ইউনিয়নের খেজুরিয়া গ্রামের ভাইজুড়ি মোড়ে রাত ১১টায় শুরু আর ভোর বেলা পর্যন্ত নারী নগ্ন (অপেরা) দেখানো হয়। উপজেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত দর্শনার্থীরা ১ শত থেকে ৩ শত টাকার টিকিট নিয়ে অপেরার প্যান্ডেলের ভিতর প্রবেশ করে।

গতকাল শনিবার রাতে ভাইজুড়ি মোড়ে গিয়ে দেখা যায়, বিলের মধ্যে চার পাশ বাঁশ ও টিনের বেড়া দিয়ে ঘেরা। বেড়ার মাঝে অপেরার মঞ্চ। সেখানে অশ্লীল নাচ দেখিয়ে হাজার হাজার টাকা আদায় করে কর্তৃপক্ষ। প্রবেশ পথে বৈশাখী র‌্যাফেল ড্র’র টিকিটের বিনিময়ে চলছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, যাত্রা ও অপেরা। অপেরার প্যান্ডেলের ভিতরে মোবাইল ফোনে নগ্নতার ছবি ও ভিডিওচিত্র ধারণ করতে পরিচালনা কমিটির নিষেধাজ্ঞা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, স্থানীয় প্রশাসনের মদদে চলছে অপেরার মঞ্চ। পুলিশের এক কর্মকর্তা নগ্নতার মঞ্চে গানও করছে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ফিরোজ খাঁ বলেন, খেজুরিয়ার যাত্রায় আছি দেখাশোনা করার জন্য। নগ্নতা দেখানো হচ্ছে না। এখানে পুলিশ প্রশাসনও থাকে।
মুঠোফোনে কথা হয় পূজা অপেরার স্বত্তাধিকারী পিযুষ কান্তি মন্ডলের সাথে। তিনি বলেন, প্রতিবছর বৈশাখী মেলা উপলক্ষে আমরা একটি নাটক ও যাত্রার আয়োজন করি। নারী নগ্নতা (অপেরা) দেখানোর বিষয় জানতে চাইলে। অস্বীকার করে লাজুক সুরে তিনি বলেন, এখানে পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিকসহ আরও অনেকে থাকেন। এর মাঝে কিভাবে অশ্লীল নাচ, গান দেখাই।

বিষয়টি জানার জন্য মুঠোফোনে বানিশান্তা ইউপি চেয়ারম্যান সুদেব রায় সাথে কথা হলে। তিনি জানান, ওখানে একটি অপেরা হচ্ছে। আমি খবর পাওয়ার সাথে সাথে সেখানে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি থানা পুলিশের কর্মকর্তারা আছেন এবং সিনেমা চলছে। আমার কাছে অপেরার অনুমোতি নিতে আসলে আমি এ ধরণের অশ্লীল কাজের জন্য কোন অনুমোতি দেয়নি। উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের কাছ থেকে পরিচালনা কমিটি বই দেখানোর জন্য অনুমোতি নিয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মারুফুল আলম মুঠোফোনে বলেন, আমি বিষয়টি শনিবারে শুনেছি এবং তাদেরকে বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছি। তবে আজ (রোববার) যদি চলে তাহলে এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।