দাকোপে চেয়ারম্যানের ছেলের ব্যবসায়িক কার্যালয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানের ছেলের নেতৃত্বে হামলা, ভাঙচুর

0
720

নিজস্ব প্রতিবেদক : খুলনার দাকোপ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবুল হোসেনের ছেলে মো. আব্দুল্লাহ আল মাসুমের ব্যবসায়ি কার্যালয়ে নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনসুর আলী খানের ছেলে ইমরান খানের নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলার প্রতিবাদে তাৎক্ষনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়।
এলাকাবাসির সুত্রমতে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শেখ আবুল হোসেনের সঙ্গে মুনসুর আলী খানের বিরোধ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বুধবার বেলা ঢেড়টার দিকে উপজেলার সদরে অগ্রণী ব্যাংক ভবনে ভাঙচুর ও লুটপাতের অভিযোগ উঠেছে নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছেলের বিরুদ্ধে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ‘অগ্রণী ব্যাংক চালনা বাজার শাখা’ ভবনের ৩য় তলায় মাসুমের ঠিকাদারী ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়। ঘটনার সময় মাসুমসহ কয়েকজন সহযোগী কার্যালয়কক্ষে অবস্থানকালিনে ইমরান খান(৩২) তার ভাগিনা মারুফ শেখের ছেলে বাঁধন শেখ(২৫), আকাশ মোল্যা(২৬) ও তপন সানা(২৫) সহ অজ্ঞাতনামা চার থেকে পাঁচজন হামলাকারিরা দা, লাটি, ছোরা ও চাকু দিয়ে পূর্বপরিকল্পনা মোতাবেক মাসুমের ব্যবসায়িক কার্যালয়ে হামলা চালায়। এসময় তারা মাসুমকে হত্যার উদ্দেশ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কার্যালয়ের দরজা ভাঙচুর করে ভিতরে প্রবেশ করে। হামলাকারিদের হাত থেকে রক্ষা পেতে মাসুম অফিসকক্ষের টয়লেটে আশ্রয় নেন। ডাকচিৎকারে রাস্তার লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারিরা প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এ দিকে প্রকাশ্যে ব্যাংক ভবনে হামলার ঘটনায় ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারী ও গ্রাহকদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন। এতে প্রায় ঢেড় ঘন্টা ব্যাংকের প্রধানফটক তালাবন্ধ করে সকল লেনদেন বন্ধ রাখা হয় বলে জানা গেছে।
দাকোপ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোকাররম হোসেন সন্ধ্যায় মুঠোফোনে খুলনাটাইমসকে বলেন, এ ঘটনায় মাসুমের পক্ষ থেকে লিখিত একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, তদন্তপূর্বক ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে মামলা দায়ের হবে।
এ দিকে হামলা ও ভাঙচুরের প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে একটি মিছিল বের হয়ে চালনা বাজারের সড়ক প্রদক্ষিণ করে কার্যালয় চত্বরে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য করেন ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল কাদের, পৌরসভার মেয়র সনত কুমার বিশ্বাস, উপজেলা আ’লীগনেতা শেখ রফিকুল ইসলাম, এসএম আব্দুল গফুর, শ্রমিকলীগের আহবায়ক গোবিন্দ বিশ্বাস, সদস্যসচিব অমারেশ ঢালী, স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক জিএম রেজা, যুবলীগনেতা রতন ম-ল, জাহিদুর রহমান মিল্টন, গাজী রবিউল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা আজগর হোসেন বাপ্পি, রাসেল কাজী, আরাফাত আজাদ, প্রতাপ রায়, রাহুল রায়, ইমদাদুল হক মিলনসহ আরও অনেকে।