দক্ষিণাঞ্চলের দুটি মাছ কোম্পানীকে বিদেশী বায়রের সতর্কবার্তা

0
694

কাজী মোতাহার রহমান:
দেশের দক্ষিাণাঞ্চলের দুটি হিমায়িত থ্যাদ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানকে নেদারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড ও রাশিয়া সতর্ক করেছে। তাদেও উৎপাদিত চিংড়িতে ব্যাক্টোরিয়ার পরিমাণ বেশী পাওয়া গেছে। যা মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর। এধারণের পণ্য রফতানি না করতে বিদেশী বায়াররা বানিজ্য মন্ত্রনালয়কে অনুরোধ করেছে। হিমায়িত খাদ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান দুটি হচ্ছে- যশোরের মোফা ফিস প্রসেসিং প্রাইভেট লিমিটেড ও বাগেরহাট সী ফুড লিমিটেড।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মোফা ফিস নেদারল্যান্ডে ১৮শ’ কার্টুন, ফিনল্যান্ডে ৮ কার্টুন এবং বাগেরহাট সি ফুড রাশিয়ায় ১২শ’ কার্টুন হিমায়িত চিংড়ি রফতানি করে। গেল আগস্ট মাসে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে হিমায়িত চিংড়ি পরীক্ষা করা হয়। অক্টোবর মাসে মৎস্য ও বানিজ্য মন্ত্রনালয়ে পাঠানো বিদেশী বায়ররা উল্লেথ্য করে রফতানিকৃত চিংড়িতে ব্যাক্টোরিয়ার পরিমাণ বেশী। যা মানবদেহের জন্য অত্যান্ত ক্ষতিকর।
মৎস্য পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রন বিভাগের উপ-পরিচালক প্রফুল্ল কুমার সরকার গণ মাধ্যমকে জানান, বাংলাদেশী পণ্যেও পরীক্ষা বাধ্যতামূলক নয়। তার পরও উল্লেখিত তিনটি দেশে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে ব্যাক্টোরিয়ার পরিমাণ বেশী বলে সনাক্ত করেছেন। উল্লেখিত মাছ কোম্পানীগুলোকে সংশ্লিষ্ট দফতর থেকেও সতর্ক করা হয়েছে।
মান নিয়ন্ত্রণ অফিসার এটি এম তৌফিক মাহমুদেও কাছে জানতে চাইলে রফতানিকৃত হিমায়িত চিংড়িতে ব্যাক্টোরিয়ার পরিমাণ বেশী বলে তিনি স্বীকার করেন। বিদেশী বায়রা ওই তিন প্রতিষ্ঠনকে সতর্ক করে দিয়েছে। বাগেরহাট সী ফুডের দশটি চালান কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে।
একই অফিসের মান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, পণ্য রফতানির সময় পরীক্ষা নীরিক্ষা করা হয়। ব্যাক্টোরিয়া সংক্রামিত হওয়ার উৎস্যগুলো খোঁজা হচ্ছে। ভবিষ্যতে যাতে হিমায়িত চিংড়ি ব্যাক্টোরিয়ায় আক্রান্ত না হয় সে ব্যাপারে মাছ কোম্পানিগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে।
উল্লেখ করা যেতে পারে দক্ষিণাঞ্চল থেকে ৩৬টি মাছ কোম্পানী বিদেশে হিমায়িত গলদা ও বাগদা চিংড়ি রফতানি করছে।#