দক্ষিণাঞ্চলের চার জেলায় ৩ হাজার ৬৩০ কোটি টাকা মূল্যের বোরো উৎপাদনে আশাবাদী কৃষি কর্মকর্তারা

0
373

কাজী মোতাহার রহমান:
আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় দক্ষিণাঞ্চলের চার জেলায় এবার বোরোর বাম্পার ফলন হয়েছে। খাদ্য ঘাটতির ৭৫ ভাগ পূরন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । ৯ লাখ ২৮ হাজার মেঃ টঃ ধান উৎপাদন হবে। উৎপাদিত ধানের মূল্য ৩ হাজার ৬৩০ কোটি ১৫ লাখ টাকা। দক্ষিণাঞ্চলের জেলা গুলো হচ্ছে খুলনা, সাতক্ষীরা , বাগেরহাট ও নড়াইল।
এবার চার জেলায় ২ লাখ ৩৭ হাজার ১৭৫ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়। তার মধ্যে খুলনা জেলায় ৫৮ হাজার ৫৮০ হেক্টর, বাগেরহাট জেলায় ৫৬ হাজার ৬৫ হেক্টর, সাতক্ষীরা জেলায় ৭৬হাজার ৩৪৫ হেক্টর ও নড়াইল জেলায় ৪৬ হাজার ১৮৫ হেক্টর।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মৌসুমের শুরুতেই বীজের মূল্য বৃদ্ধি পায়। ফেব্রুয়ারীর প্রথম দিকে সার সংকট দেখা দেয়। বিদ্যুৎ সরবারহ নিরবিচ্ছিন্ন থাকায় সেচ সংকট দেখা দেয়নি। ডিসেম্বর থেকে এপ্রিল পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকুলে ছিল। ব্লাষ্ট ও মাজরা পোকা বড় ধরনের আঘাত করতে পারেনি।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের সহকারি পরিচালক নিত্য রঞ্জণ বিশ্বাস বলেন, এবারে চার জেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৮ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। এ অঞ্চলের জেলাগুলোতে ফলন ভালো হয়েছে। বৈরি আবহাওয়া না থাকায় কৃষক কাঙ্খিত উৎপাদন পাবে।
সাতক্ষীরা জেলা উপ-পরিচালক আব্দুল মান্নান জানান, হেক্টর প্রতি ৪ মেট্টিক টন ধান উৎপাদন হবে। জেলা সদর, তালা ও কলারোয়া উপজেলায় এবারে ভালো ফলন হবে। ব্লাস্টে আক্রমনের পরিমান কম ছিল। কৃষকরা ভালো দাম পাবে বলে তিনি আশাবাদী।
ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, ব্লাস্ট প্রতিরোধ করায় ভালো ফলন হয়েছে। তিনি বলেন, এবারে আবহওয়া অনুকূলে ছিল।
স্থানীয় ধান ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, প্রতি মেট্টিক টন চাল ৩৯ হাজার ১০১ টাকা এবং ধান ২৬ হাজার ৬৭ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গেল বছর উল্লিখিত চার জেলায় ২ লাখ, ২২ হাজার হেক্টর জমিতে ৯ লাখ ৩৭ হাজার মেট্টিক টন ধান উৎপাদন হয়।