তেরখাদার ইউএনও’র অপসারণের দাবিতে খুলনা প্রেসক্লাবের ৭ দিনের আল্টিমেটাম

0
333

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু’র সাথে অশালীন আচরণকারী তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ লিটন আলীকে ৭ দিনের মধ্যে অপসারণ এবং দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিকরা। খুলনা বিভাগীয় কমিশনার বরাবর দেয়া এক স্মারকলিপিতে এ দাবি জানানো হয়। অন্যথায় সাংবাদিক সমাজ এই ঘটনার প্রতিবাদে ধারাবাহিক আন্দোলন গড়ে তুলবেন বলেও স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
খুলনা প্রেসক্লাবের আয়োজনে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের উদ্যোগে তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিটন আলীর অপসারন আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিভাগীয় কমিশনার বরাবর এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। প্রেসক্লাব সভাপতি ফারুক আহমদের কাছ থেকে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. ফারুক হোসেন।
স্মারক লিপিতে বলা হয়েছে, মো. লিটন আলী খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু কে গত ১৫ ফেব্রুয়ারী বিআরবি আজগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফোন করেন। ওই স্কুলের সভাপতি মল্লিক সুধাংশুর সাথে ফোনালাপের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ইউএনও লিটন আলীর ভাষা ও শব্দ চয়ন ছিলো অশালীন, ঔদ্ধত্যপূর্ণ, আদেশ করার সামিল, মানহানিকর, তুচ্ছতাচ্ছিল করা এমনকি হুমকি স্বরূপও। এমন অশোভন আচরণ দেশের একজন সাধারণ নাগরিকের সাথেও প্রজাতন্ত্রের কোন সেবকের করা উচিত নয় । উপরন্তু মল্লিক সুধাংশু স্কুল কমিটির সভাপতি ছাড়াও খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সিনিয়র সহ-সভাপতি, খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি ও বৈশাখী টিভি খুলনার বিভাগীয় প্রতিনিধি। তাছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, মানবাধিকার সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত। ইউএনওর এমন আচরণের বিষয়টি গোটা সাংবাদিক সমাজকে মর্মামত করেছে। বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে সমাজের সর্বস্তরের মানুষ। এ ব্যাপারে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সামাজি যোগাযোগ মাধ্যমেও।
স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, জেলা প্রশাসক আমিন উল আহসানকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এরপর বিভাগীয় কমিশনারের কাছে স্মারকরিপি প্রদান করা হলো। ইউএনওকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত ধারাবাহিক আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। আর এই আন্দোলনের সাথে খুলনা প্রেসক্লাব ছাড়াও
খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন, খুলনা টিভি রিপোর্টার ইউনিটি, খুলনা মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন, খুলনা ফটো জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশন, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশন, খুলনা সংবাদপত্র পরিষদসহ সর্বস্তরের সাংবাদিকরা রয়েছেন।
এদিকে স্মারকলিপি প্রদানকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু, যুগ্ম-সম্পাদক আলমগীর হান্নান, ক্লাবের সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, শেখ আবু হাসান ও এস এম হাবিব, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবীর কুমার রায় ও মামুন রেজা, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, খুলনা মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা হাসান আহমেদ মোল্লা, খুলনা সংবাদপত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তফা সরোয়ার, খুলনা টিভি রিপোর্টাস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক রকিব উদ্দিন পান্নু, খুলনা টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নিয়ামুল হোসেন কচি, ক্লাব সদস্য আব্দুল মালেক, মাহবুবুর রহমান মুন্না, উত্তম সরকার, ইউজার সদস্য সুদীপ দাস, কপিলমুনি প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রজ্জাক রাজু ও ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এইচ এম শফিকুল ইসলাম, সাংবাদিক আসাফুর রহমান কাজল, কলিন হোসেন আরজু এম এ কবীর মুন্সি ও নাজমুল হাসান প্রমুখ।