তালায় রাস্তা দখল করে বাড়ি নির্মাণ : অবরুদ্ধ দু’গ্রামের ২শ’পরিবার

0
419

সেলিম হায়দার : সাতক্ষীরার তালার উপজেলা তৈলকুপীর একটি সরকারি রাস্তার উপর পাকা ইমারত নির্মাণ করায় ২টি গ্রামের প্রায় দু’শতাধিক পরিবার ও দু’টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের স্কুলে যাতায়াতে ব্যাপক দূর্ভোগের আশংকা করছেন সেখানকার সাধারণ এলাকাবাসী। এর আগে এনিয়ে একাধিকবার স্থানীয় পর্যায়ে শালিশী ও সর্বশেষ রাস্তার উপর থেকে অবৈধ স্থাপনা অপসারণে সেখানকার ইউএলএওকে দু’দফার নির্দেশ দিলেও উপরন্তু দখলদাররা তাকে মানষিকভাবে লাঞ্ছিত ও হুমকি-ধামকি দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাড়িয়ে দিয়েছেন। সর্বশেষ পরিস্থিতিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে ফের তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগে জানাযায়,উপজেলার তৈলকুপী গ্রামের ঈসা গাজীর দোকান হতে তৈলকুপী দঃপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত প্রায় কোয়ার্টার কিঃমিঃ রাস্তার পথিমধ্যে মোসলেম গাজীর বাড়ির সন্নিকটে সরকারের খাস খতিয়ানের ৪৬০৩ ও ৪৭১৮ দাগের মধ্য দিয়ে বহমান ১৪ ফুট প্রস্থর সম্পূর্ণ দখল করে স্থানীয় মৃত আলী বক্স গাজীর জামাতা ও মৃত নাজের গাজীর ছেলে নজরুল গাজী পাকা ঘর নির্মাণ করছেন। এনিয়ে এলাকাবাসী বাঁধা দিতে গেলে তিনি কারো কথায় কোন প্রকার কর্ণপাত না করে ঐস্থানেই আর সিসি পিলারের পাকা বসত ঘর নির্মাণ অব্যাহত রেখেছেন। এরপর এলাকাবাসী সমবেত হয়ে কয়েক দফা সার্ভেয়ার দিয়ে জরীপ কার্য পরিচালনা করে তা খাস খতিয়ানের অন্তর্ভূক্ত হিসেবে চিহ্নিত হলেও নজরুল তাদের অবমাননা করে তার কার্যক্রম অব্যাহত রাখেন। এসময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি আব্দুল হামিদের মধ্যস্থতায় গণ্য-মান্য ব্যক্তি বর্গ ঘটনাস্থলে বসাবসি করে সিদ্ধান্তে আসলেও নজরুল তাদের অপমান করেন। এসময় এক প্রকার বাধ্য হয়ে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দারস্থ হলে তিনি রাস্তার উপর থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে সেখানকার তহশীলদার(ইউএলএও) তারক চন্দ্র মন্ডলকে নির্দেশ দিলে তার সহকারী কার্তিক চন্দ্র মন্ডল সম্প্রতি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে নজরুল গং স্ব-দল বলে তাকে রীতিমত মানষিকভাবে লাঞ্ছিত ও হুমকি-ধামকি দিয়ে বের করে দেন।
সর্বশেষ তৈলকুপী দঃপাড়া ও মশা ডাঙ্গা গ্রামের সাধারণ মানুষ ও স্থানীয় দু’টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের প্রধান ও একমাত্র পথটি রক্ষায় এক প্রকার বাধ্য হয়ে ফের মঙ্গলবার তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ করেছেন।