ডুমুরিয়ায় হাতিটানা নদীর উপর বাঁশের সাঁকোটির বেহাল দশা : চরম ভোগান্তীতে এলাকাবাসি

0
425

এস রফিক, ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি:
ডুমুরিয়ায় মাগুরখালী ইউনিয়নে হাতিটানা নদীর উপর একেতো বাঁশের সাঁকো, তার উপর বড় বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। পারাপারে ক্ষেত্রে এাকাবাসির জন্য এটি যেন মরণ ফাঁদ হয়ে দাড়িয়েছে। তার পরও ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত পারাপার হতে হচ্ছে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকাবাসির।যেন দেখার কেউ নেই। তবে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বলছে সাঁকোটি মেরামতের জন্য ১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটে অর্ধ লক্ষ টাকা বাজেট রাখা হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও এলাকাবাসির সাথে কথা বলে জানা যায় মাগুরখালী ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রায় ১‘শ মিটার প্রস্ত বড় ধরনের একটি নদী বয়ে গেছে। যার দু‘পার দিয়ে গড়ে উঠেছে ঝরঝরিয়া, হুগলবুনিয়া, বিনাপাণি, হাতিটানাসহ কয়েকটি গ্রাম। গ্রামগুলিতে রয়েছে হাজার হাজার লোকের বসবাস। আর লোক গুলির পারাপারের জন্য এলাকাবাসির উদ্যোগে হাতিটানা নদীর উপর স্থাপন করা হয়েছে একটি বাঁশের সাঁকো। কিন্ত সম্প্রতি সাঁকোটির অবস্থা বড় বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। যে কারনে প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে সিমাহীন দূর্ভোগে পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের।

কথা হয় স্থানীয় ইউপি সদস্য অনিমা মন্ ডল,শিক্ষক সুব্রত মন্ডল, প্রবীন ব্যক্তিত্ব অনাদি মন্ডল, প্রশান্ত সরকার, অঞ্জলী সানা, শুসুমার সরকারসহ অনেকের সাথে। তারা জানান প্রায় অর্ধশত বছর হতে গেল, এলাকাবাসি মিলে নদীটির উপর নির্মান করা হয় একটি বাঁশের সাঁকো। এর আগে নৌকা ছিল একমাত্র সম্বল। যা থেকে উন্নিত হয়ে নির্মিত হয় সাঁকোটি। কিন্ত সাঁকোটি দিনে দিনে বড় নাজুক হয়ে পড়ছে। যা পারাপারের জন্য বড় দূর্ভোগের কারন ও মরণ ফাঁদ হয়ে দাড়িয়েছে।

কথা হয় পল্লীশ্রী কলেজর ছাত্রী নিলিমা রায়,বিনা রায় মিঠুন মন্ডল,স্কুল ছাত্রী বৈশাখী সানা,নিশিকান্ত মন্ডল,ধ্রæব সরকারসহ অনেক শিক্ষার্থীর সাথে তারা জানান পল্লীশ্রী কলেজ,মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বিনাপাণি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যেতে এই সাঁকোটি পারাপারের বিকল্প নেই।তারউপর এটি এখন পুরাতন ও বেহাল দশা হয়ে পড়ায় প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনার শিকার হতে হয়। আশু এর মেরামত খুবই প্রয়োজন। তারা আরো জানান এটিকে কাঠের সাঁকো করা হবে,জনপ্রতিনিধিরা বহুবার এমন প্রতিশ্রæতি দিলেও সেটি মাত্র নির্বাচন পর্যন্ত সিমাবদ্ধ থাকে। জানি না আদৌ তা কোন দিন বাস্তবে পরিণত হবে কিনা ?

এ প্রসংগে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ সানাজানান সাঁকোটি মেরামতের জন্য ১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটে অর্ধ লক্ষ টাকা বাজেট রাখা হয়েছে। যার কাজ খুব তাড়াতাড়ি শুরু করা হবে।

এ প্রসংগে উপজেলা চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর বলেন হাটিটানা নদীতে একটি ব্রীজ খুবই প্রয়োজন। বিষয়টি মাথায় আছে,আশা করি তাড়াতাড়ি এটি বাস্তবে রুপ নেবে।