ডুমুরিয়ায় হরিদাশের হত্যা প্ররোচনায় দোষীদের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন

0
393

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি, খুলনাটাইমস:

ডুমুরিয়ায় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হরিদাস বিশ^াস হত্যা প্ররোচনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার সকালে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য ও পূজা উদ্যাপন পবিষদের ব্যানারে যৌথ আয়োজনে ডুমুরিয়া বাসষ্ট্যান্ডে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে এক মানববন্ধন কর্মসুচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মানববন্ধন ও সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, উপজেলার জিলেরডাঙ্গা গ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হরিদাস বিশ^াস হত্যা প্ররোচনায় দোষীদের শাস্তির দাবীতে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য ও পূজা উদ্যাপন পবিষদের ডুমুরিয়া উপজেলা শাখা কর্তৃক আয়োজিত যৌথ ব্যানারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচী ও পথ সভায় সভাপতিত্ব করেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতা গোপাল চন্দ্র দে। কর্মসূচীতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড রবীন্দ্রনাথ মন্ডল। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্যদেন, উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক গোবিন্দ ঘোষ, জেলা পরিষদের সদস্য অভিজিৎ চন্দ, কাজী আলমগীর, প্রভাষক গৌর ঢালী, কাজী আব্দুল্লাহ, আবুল হাসান গাজী, কাজী আব্দুল মজিদ, ইউপি সদস্য মাসুদ রানা সরদার, সুকৃতি মন্ডল, হরিদাসের বোন রত্মা বিশ^াস, নিলিবতী বিশ^াস, হরিদাসের ছোট মেয়ে লাবন্য বিশ্বাস, পুর্নেন্দু বিশ^াস ও অরিন্দাম মল্লিক। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন প্রভাষ বর্ধন, কৃষ্ণপদ কবিরাজ, লিটন মন্ডল, সঞ্জয় দেবনাথ, শিলা মন্ডল, মোহন বিশ্বাস প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, হরিদাস বিশ^াসের হত্যা প্ররোচনায় মৃত্যু হয়েছে। নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হলেও পুলিশ এর রহস্য খুঁজে বের করতে ব্যর্থ হয়েছে। লাশের ময়না তদন্ত আর একটি অপমুত্যু মামলা থানায় রেকর্ড করেই ডুমুরিয়া থানা পুলিশ দায় সেরেছে। পুলিশ এ হত্যার রহস্য খুঁজে বের না করলে কঠোর অন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি দিয়েছেন ওই বক্তরা।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মসূচীতে অংশ নেয়া ক্ষমতাশীন দলের দুইজন রাজনৈতিক ব্যক্তি সাংবাদিকদেরকে জানান, ৩ মেয়ের জনক হরিদাসের মৃত্যৃ হয়েছে নিজ বাড়িতে। সে অতিমাত্রায় মদ্য পান করতেন। এ কারণে তার পারিবারিক দ্বন্ধ ছিলো প্রকট। তবে গতকালের মানববন্ধন ও পথ সভায় হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য ও পূজা উদ্যাপন পবিষদের নেতা-কর্মী উপস্থিতি ছিলো ক্ষীণ। স্থানীয় একটি রাজনৈতিক মহল প্রতিপক্ষকে সায়েস্তা করতে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করছে বলে বিভিন্ন মহলে বিরুপ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। তবে সব মিলিয়ে হরিদাসের মৃত্যুটি রহস্য জনক। মৃত্যুর মূল রহস্য খুঁেজ বের করা হোক এ দাবী ডুমুরিয়া বাসীর সকলের। উল্লেখ্য, উপজেলার গুটুদিয়া ইউনিয়নের জিলেরডাঙ্গা গ্রামে হরিদাশের বাড়ি। মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে তার বাগান বাড়ির শয়ন কক্ষের দরজা ভেঙ্গে হরিদাশের মৃতদেহ উদ্ধার করে তার পরিবারের সদস্যরা। পরে পুলিশ লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মোহন বিশ^াস বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেন। নিহতের পরিবার ও তার ভাই মোহন বিশ^াস জানিয়েছেন, হরিদাস বিশ^াস সোমবার সন্ধ্যায় খুলনা শহর থেকে বাড়ি আসেন। এ সময় তিনি স্বাভাবিক অবস্থায় ছিলেন। এরপর বাড়িতে রাতের খাবার খেয়ে রাত ১০টার দিকে বাগান বাড়ির দ্বিতীয় তলায় তার শয়ন কক্ষের দরজা বন্ধ করে একা ঘুমিয়ে পড়েন। সকাল সাড়ে সাতটার দিকে অনেক ডাকাডাকির একপর্যায়ে তার কোন সাড়া না পেয়ে ওই রুমের দরজা ভেঙ্গে দেখা যায় তার নিথর দেহ পড়ে আছে।#