ডুমুরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় আর কত ঝড়বে তাজা প্রাণ : টনক নড়েছে প্রশাসনের

0
387

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি:
ডুমুরিয়ায় পাল্লা দিয়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে সড়ক দূর্ঘটনা।ঝরছে শত শত তাজা প্রাণ। আর পঙ্গুত্ব বরনের
তালিকায় রয়েছে শিশু,মহিলা,যুবক,বৃদ্ধসহ হাজারো মানূষ।দূর্ঘনার খবর গুলি শুধু পত্রিকার পাতা আর স্বজনদের আহাজারি পর্যন্ত সীমাবদ্ধ।কেউ রাখে না হতাহতের খবর।আর কত ঝরবে তাজা প্রান,আর কতই বা হবে পঙ্গুত্বের শিকার ? এমন প্রশ্ন এখন প্রতিটি মানূষের কাছে।এ নিয়ে যেন নেই কাহারও মাথা ব্যাথা।তবে সম্প্রতি গত শনিবার দুপুরে ডুমুরিয়া মাঝের ভেড়ী নামক স্থানে ঘটে যাওয়া দূর্ঘটনায় শিশুসহ ৪ জনে প্রাণ হানীর ঘটনায় টনক নড়েছে উপজেলা প্রশাসনের।নেয়া হয়েছে বেশ কিছু হয়েছে পদক্ষেপ। এ নিয়ে সোমবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপজেলা প্রশাসন খুলনা বাস মালিক সমিতি, মটর শ্রমিক ইউনিয়নসহ সূসীল সমাজের সমন্বয়ে দূর্ঘটনার কারন ও সমাধান শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় উঠে আসে দূর্ঘনার কারন ও করণীয় বেশ কিছু উপায়। দূর্ঘনার কারন হিসেবে উঠে আসে-মাহাসড়কে নছিমন,করিমন,মাহেন্দ্র,ইজিবাইকসহ নানা অবৈধ গাড়ীর আবাধ বিচরন, প্রতি মিনিটে বিলম্ব জরিমানা ৫০ টাকা বাঁচাতে ড্রাইভারের বেপরোয়া গাড়ী চালানো,রাস্তার বেহাল দশা, কানেমোবাইল নিয়ে বা উদাসিন ভাবে ড্রাইভারের গাড়ী চালানো,আনফিট গাড়ী রাস্তায় নামানো,ছাদে মাল বা লোক বহনসহ অভার লোড,মৃত্যু ও আহত জরিমানা কম,হেলপারের হাতে গাড়ী দেয়া সহ বিভিন্ন কারন। এর মধ্যে আলোচনার টেবিলে প্রতি মিনিটে বিলম্ব জরিমানা ৫০ টাকা বাঁচাতে ড্রাইভারের বেপরোয়া গাড়ী চালানো,কানে মোবাইল নিয়ে বা উদাসিন ভাবে ড্রাইভারের গাড়ী চালানো,আনফিট গাড়ী রাস্তায় নামানো ও ওভার লোডের বিষয় গুলি স্থান পায়।পাশাপাশি দূর্ঘটনা রোধে করণীয় আলোচনায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা,স্ট্রান্ড ছাড়া গাড়ী দাড়ানো নিষেধ,ওভার লোডে নিয়নন্ত্রনে জরিমানর পাসাপাসি গাড়ীর ছাদে উঠতে পিছনের সিড়ি খুলে দেয়া,অদক্ষ ড্রাইভার ও আনফিট গাড়ী রাস্তায় না নামানো সহ বেশ কিছু উপায় উঠে আসে।এক পর্যায়ে আলোচনা শেষে উপজেলা প্রশাসন, খুলনা বাস মালিক সমিতি,মটর শ্রমিক ইউনিয়ন, ও সূসীল সমাজ একমত পোষন করেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আশেক হাসান,সহকারি কমিশনার (ভ’মি) মোঃ নাজমুল হাসান খান,ওসি মোঃ হাবিল হোসেন,হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ বিএম এমদাদুল হক,খুলনা বাস মালিক সমিতির কার্য নির্বাহী সভাপতি মোঃ মিরাজ,খুলনা বিভাগীয় মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন বিপ্লব, প্রেস ক্লাবের সভাপতি কাজী আবদুল্লাহ সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানূষ।