ডুমুরিয়ায় মামলা তুলতে রাজী না হওয়ায় নারীকে মারধর

0
224

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি: ডুমুরিয়ার রুদাঘরায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক দম্পত্তি প্রতিপক্ষের হাতে বেদম মারপিটের শিকার হয়ে আহত হয় বলে অভিযাগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী মুসলিমা খাতুন বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ রাজিব সরদার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে গত রবিবার ডুমুরিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।
লিখিত অভিযাগ ও এলাকা বাসী সূত্রে জানা যায়, উপজলার রুদাঘরা গ্রামের নুরুজ্জামান সরদার ওরফে লিটন সরদারের পরিবারের সাথে একই গ্রামের বিবাদী রাজিব সরদার(২৪), গফফর সরদার (৪৫)সহ অন্যান্যদের সাথে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। বিরোধের জের ধরে বাদী মুসলিমা খাতুন ২০১৭ সালে বিবাদীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ধারায় ডুমুরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার নম্বর ৪৪, তারিখ ২০-০৬-২০১৭ইং। উক্ত মামলাটি বর্তমান বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। বিবাদীগন উক্ত মামলা হতে জামিনে মুক্তি পেয়ে বাদীকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য চাপ দেয়। বাদী মামলা প্রত্যাহার করতে রাজি না হওয়ায় বিবাদীগন গত শনিবার রাত আনুমানিক সাড় ৮ টার দিকে ১নং বিবাদী রাজিব সরদারের নেতৃত্বে আরও ৬/৭ জন লাহার রড, বাঁশের লাঠি নিয়ে বাদী মুসলিমা খাতুনের বাড়ীতে অনাধিকার প্রবেশ করে মামলা তুলে নেয়ার চাপ দেয়। এক পর্যায়ে বাদী মুসলিমা খাতুন মামলা তুলে নিতে রাজী না হওয়ায় আসামীগন বাদীকে বেদম মারপিট করে আহত করে। ঠেকাতে আসলে মুসলিমার স্বামী লিটনকে ও তারা মারপিট করে আহত করে এবং কোথাও কোন অভিযোগ না করার জন্য হুমকি ধামকি দিয়ে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে মুসলিমা ও তার স্বামী লিটনকে উদ্ধার করে ডুমুরিয়া উপজলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অভিযোগের বিষয় রঘুনাথপুর পুলিশ তদন্ত কদ্রর টু-আইসি এস, আই আমিনুর রহমান জানান, অভিযাগটি তত্তাধীন রয়েছে। শেষ হলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।