ডুমুরিয়ায় পৃথক হামলায় প্রতিবন্ধী শিশু-বৃদ্ধসহ জখম ৪

0
412

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি: ডুমুরিয়ায় পৃথক হামলায় প্রতিবন্ধী শিশু-বৃদ্ধসহ ৪ জন জখম হয়েছে। আহতদের মধ্যে দু‘জন ডুমুরিয়া ও একজন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত বুধবার রাত সাড়ে ১১ টায় উপজেলা কেয়াখালী, বুধবার বিকেলে উলা স্কুল মাঠ ও বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায দক্ষিন গোবিন্দকাটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সকল হামলার ঘটনায় থানায় পৃথক পৃথক অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। দায়েরকৃত অভিযোগ ও আহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায় কেয়াখালী এলাকায় মেহের আলী সরদারের সাথে একই এলাকার ওমর আলীর জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ছিল। তারই জের ধরে ঘটনার রাতে ওমর, তার বড়ভাই আঃ হামিদ ও আমির আলীসহ ৩/৪ জন দা, লাঠি,সোটা নিয়ে মেহের আলীর বাড়ীতে গিয়ে হামলা চালায়।এতে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মেহের আলী রক্তাক্ত জখম ও তার ছোট ভাই জাবের আলী সরদার আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ দিকে বুধবার বিকেলে উলা প্রথমিক বিদ্যালয়ে ছুটি শেষে ছাত্ররা ফুটবল খেলার সময় একই এলাকার বহিরাগত আঃ কুদ্দুস নামের এক কিশোর ওই খেলায় যোগ দেয়। এক পর্যায়ে খেলার মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোর আঃ কুদ্দুস বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্র বাক প্রতিবন্ধী বিধবা মায়ের একমাত্র ছেলে ফয়সাল কে মারপিট করতে থাকে। খবর পেয়ে কুদ্দুসের পক্ষ নিয়ে আরো ২/৩ জন ছুটে এসে প্রতিবন্ধী শিশুটিকে বেপরোয়া ভাবে মারপিট করে। খবর পেয়ে বিধবা মাতা বলকিস বেগম স্থানীয়দের সহেতায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। অপরদিকে দক্ষিন গোবিন্দকাটি এলাকায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ঘটনার রাতে প্রতিপক্ষ আঃ ছাত্তার কাগজী,খায়রুল কাগজী,আকতারুল কাগজী একই এলাকার শওকত কাগজী (৭৫)‘র বাড়ীতে গিয়ে হামলা চালায়। হামলায় বৃদ্ধ শওকত আলী রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ডুমুরিয়া ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।