ডুমুরিয়ায় নীতিমালা উপেক্ষা করায় ৬৫টি সমিতির নিবন্ধন বাতিলের সুপারিশ

0
428

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি:
ডুমুরিয়ায় সমবায় সমিতি কর্যালয় থেকে নিবন্ধন নিয়ে অসংখ্য সমিতি নীতিমালা উপেক্ষা করে তাদের মত
করে চালিয়ে যাচ্ছে তাদের কার্যক্রম। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ব্যাংক, বীমাসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও খেটে খাওয়া সাধারন মানুষ।তবে নীতিমালা উপেক্ষা করে কোন সমিতির কার্যক্রম চালাতে দেয়া হবে না,
এমনকি চলতি অর্থ বছরে ৬৫টি সমিতির নিবন্ধন বাতিল ও বেশ কয়েটি সমিতিকে কারন দর্শানো নোটিশ দেয়া য়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা সমবায় সমিতির কর্মকর্তা। উপজেলা সমবায় সমিতির কার্যালয় সূত্রে জানাযায় ডুমুরিয়ায় নিবন্ধিত ৫৮০টি সমিতি রয়েছে। এরমধ্যে বিভিন্ন দপ্তরের ৩‘শ এবং সমবায়
দপ্তরের ২৮০টি সমিতি রয়েছে। সমবায় দপ্তরের বেশীর ভাগ সমিতি নিবন্ধন পেয়েই বাংকিং কার্যক্রম
যেমন ডিপিএস,এসডিপিএস,সমিতির সদস্য ছাড়াই যত্রতত্র চড়াও সুদে দৈনিক কিস্তিতে ঋন প্রদানসহ
নানা কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হচ্ছে।.এতে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ব্যাংক
বীমাসহ বিভিন্ন অর্থিক প্রতিষ্ঠিান। অনুরুপ ভাবে চড়াও সুদে দৈনিক কিস্তির টাকা দিতে গিয়ে পথে বসছে
খেটে খাওয়া সাধারন মানুষ। এ নিয়ে কথা হয় উপজেলা সমবায় সমিতির কর্মকর্তা এফ এম সেলিম আখতারের সাথে। তিনি জানান চলতি ১৭-১৮ অর্থ বছরের অডিট শেষ হয়েছে। অডিটে নীতিমালা উপেক্ষা করে কার্যক্রম পরিচালনা, সমিতির মধ্যে কোন্দল,নিস্কৃয়তা ,সাধারন মানুষকে ঠকানোসহ নানা
অনিয়ম ধরা পড়ায় ৬৫টি সমিতির নিবন্ধন বাতিলের সুপারিস করা হয়েছে। এ ছাড়া শ্বপ্ন সমবায় সমিতি,
অগ্রনী সমবায় সমিতি,পদ্মা সমবায় সমিতি,শাহাপুর মৎস্যজীবি সমিতি ও চুকনগরের প্রাইম সমবায় সমিতিতে বিভিন্ন অনিয়ম পরিলক্ষিত হওয়ায় কেন নিবন্ধন বাতিল করা হবে না মর্মে কারন দর্শানো নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন গত বছর যেখানে ১৯ লক্ষ টাকা রেভিনিউ দেয়া ছিল এ
বছর সেখানে ২৫লক্ষাধীক নেভিনিউ‘র টাকা জমা দেয়া হয়েছে। যে কারনে ডুমুরিয়ার অবস্থান খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম। মাত্র ৬ জন জনশক্তি নিয়ে এতবড় উপজেলা সামলানো খুবই কঠিন উল্লেখ করে তিনি বলেন জনশক্তি বৃদ্ধি পেলে ডুমুরিয়ার সমবায় সমিতির অবকাঠামো আরো মজবুত, নীতিমালার
সঠিক প্রয়োগ ও বেশী মুনাফা অর্জন হত এতে কোন সন্দেহ নেই।কারন ডুমুরিয়ার মানুষ সমবায় মুখী। এ প্রসংগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ শাহনাজ বেগম বলেন নীতিমালা উপেক্ষা করে কোন সমিতি নিজর মত করে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।