ডুমুরিয়ায় ঋন গ্রহিতাকে ফাঁসাতে গিয়ে ধরাশায়ী সমিতি কর্তৃপক্ষ

0
388

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি:
ডুমুরিয়ায় ঋন গ্রহিতা এক বিধবা মহিলাকে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেছে সমিতির কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় দায়েরকৃত প্রতারনা মামলার প্রধান আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। ডুমুরিয়া বাজাস্থ সোনালী ক্ষুদ্র সমবায় সমিতি লিঃ এর কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রাজনগর এলাকার বিধবা যুথিকা হালদার ডুমুরিয়া বাজারস্থ সোনালী ক্ষুদ্র সমবায় সমিতি লিঃ থেকে বিশ হাজার টাকা ঋন গ্রহন করেন। শর্তমোতাবেক সমিতি কর্তৃপক্ষ যুথিকার নিকট থেকে তার স্বাক্ষরিত একটি সাদা চেক নেয়। গত ২০১৬ সালের ২৫ এপ্রিল যুথিকা সুদে আসলে ২৩ হাজার ৬‘শ টাকা পরিশোধ করেন। কিন্ত টাকা ফেরৎ কালে সমিতি কর্তৃপক্ষ চেকের পৃষ্টা পরে ফেরৎ দিবে বলে মহিলাকে বিদায় দেন। এর প্রায় ৮ মাস পরে ওই চেকে ১২ লক্ষ টাকা লিখে আদালতে একটি মামলা করে সমিতি কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার পর যুথিকা তার পরিশোধিত প্রমান পত্র উপস্থাপন সাপেক্ষে সমিতির সভাপতি শেখর চন্দ্র পাল, সহ-সভাপতি নির্মল কান্তি মল্লিক, পরিচালক তরুন কান্তি পালসহ আদায়কারী ফরহাদ মোড়লকে আসামী করে আদালতে একটি পাল্টা মামলা দায়ের করেন। আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে ওসি ডুমুরিয়াকে মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহনের নির্দেশ দেন। এ মামলার প্রধান আসামী নির্মল কান্তি মল্লিককে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে পুলিশ। এদিকে বাদীকে চেক ফেরৎ না দিয়ে মামলা তুলে নিতে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।