ডুমুরিয়ার সাহস ইউনিয়নের কামিনী বাড়ির খালের পুন:খননের উদ্বোধন

0
575

তথ্যবিবরণী:
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি বলেন, ‘বিলে লবন পানি প্রবেশ বন্ধ করায় কৃষকের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটেছে। দীর্ঘকাল ধরে সাহস ইউনিয়নের বড়বিলে লবন পানি ঢুকতো। এখন সেটা বন্ধ করে দেওয়ায় বিলের জমিতে ব্যাপক ফসলাদি হচ্ছে। একই জমি থেকে এখন ৩/৪টি ফসল ঘরে তুলতে পারছে কৃষকেরা। ফলে এ অঞ্চলের কৃষকের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটেছে।’
বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন খুলনার আয়োজনে মঙ্গলবার দুপুরে ডুমুরিয়া উপজেলার সাহস ইউনিয়নের কামিনীবাড়ি খাল পুনঃখনন কাজের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে দেশের সার্বিক উন্নয়ন ঘটে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ ডুমুরিয়া অঞ্চল উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে।’ এসময় মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার দেশের সকল খালগুলোকে পনু:খননের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এজন্য ৫৭ হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এতে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তাদের সরকার পনুর্বাসন করবে। উল্লেখ্য, প্রায় দুই কিলোমিটার খাল খননে ব্যয় হবে প্রায় ১৫ লাখ টাকা।
সাহস ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার দেবনাথের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী সভায় বক্তব্যদেন বিএডিসি’র খুলনার নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান মমতাজ, খুলনা পুলিশ সুপার বি-সার্কেল সজীব আহম্দে খান, থানা অফিসার ইনচার্জ হাবিল হোসেন, সাহস ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জয়নাল আবেদিন, ডুমুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান গাজী হুমায়ুন কবির বুলু, আ’লীগ নেতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল কুদ্দুস, ডাঃ মোহম্মদ আলী খান, ইউপি সদস্য সিরাজ সরদার, আশীষ কুন্ডু, শেখ হায়দার আলী, হাফিজ সরদার, ইউপি সদস্য নূর মোহম্মদ মোড়ল, খান শফিকুল ইসলাম, সন্তোষ মন্ডল, মোল্যা আব্দুল বারিক, হরিদাশ মন্ডল, কালী পরিমল, আব্দুল জলিল, শাহজালাল মোড়ল, হাসান শেখ, খলিল শেখ, তোফায়েল আহমেদ, আবু হাসান প্রমুখ।
#