‘ডিশ ব্যবসাকে’ কেন্দ্র করে হত্যা, তারপর ‘ক্রসফায়ার’

0
1136

অনলাইন ডেস্কঃ
ডিশ ব্যবসাকে কেন্দ্র করেই গতকাল বুধবার রাতে বাড্ডার জাগরণী ক্লাবের সামনে দুর্বৃত্তদের গুলিতে কেবল অপারেটর আবদুর রাজ্জাক বাবু নিহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। ছবি : এনটিভি

ডিশ ব্যবসাকে কেন্দ্র করেই গতকাল বুধবার রাতে বাড্ডার জাগরণী ক্লাবের সামনে দুর্বৃত্তদের গুলিতে কেবল অপারেটর আবদুর রাজ্জাক বাবু নিহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।

এরপর রাতেই রাজধানীর বাড্ডায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন। তাঁর নাম সাফায়েত তামরিন (৩০)।

ডিবি পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ডিশ ব্যবসায়ী বাবুকে গুলি করে পালিয়ে যাওয়ার সময় যে তিনজন ধরা পড়ে, তার মধ্যে সাফায়েতও ছিলেন।

ডিশ ব্যবসায়ী আবদুর রজ্জাক খুনের ঘটনার প্রাথমিক তদন্তের পর বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘দীর্ঘদিন থেকে ডিশ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে কিছু ঝামেলা চলছিল, তবে তা দৃশ্যমান হয়নি। হঠাৎ করেই বুধবার রাতে দুর্বৃত্তরা আবদুর রাজ্জাককে গুলি করে হত্যা করে।’

এ ঘটনায় সন্দেহভাজন একজন পুলিশের ক্রসফায়ারে মারা গেছে। এ ছাড়া দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, আরো দুজনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

নিহত রাজ্জাক মধ্য বাড্ডার শহীদ মিনার এলাকায় পরিবার নিয়ে থাকতেন। তাঁর বাবার নাম ফজলুর রহমান। রাজ্জাক ম্যাক্স কেবল নামে ডিশের ব্যবসা করতেন। তাঁর স্ত্রী ও এক সন্তান রয়েছে। এক ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন বড়।

ফজলুর রহমান জানান, রাত ৯টার পর দক্ষিণ বাড্ডা জাগরণী ক্লাবে ভেতরে গুলিবিদ্ধ অবস্থার পড়ে ছিলেন আবদুর রাজ্জাক। এরপর মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক রাত সোয়া ১০টার দিকে রাজ্জাককে মৃত ঘোষণা করেন। হত্যার ব্যাপারে কোনো কারণ জানাতে পারেননি ফজলুর রহমান।

পুলিশ বলছে, এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি।