ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নূরের বিরুদ্ধে মামলা

0
38

টাইমস ডেস্ক:

ফেসবুক লাইভে এসে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করে উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আশরাফুল ইসলাম সজীব বাদী হয়ে রাজধানীর শাহবাগ থানায় রোববার (১৮ এপ্রিল) রাতে মামলাটি দায়ের করেন।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ বলেন, উসকানিমূলক এবং আওয়ামী লীগের কর্মী ও সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধের ওপর আঘাত করে আপত্তিকর ও আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, ভিপি নূরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩৫ ধারায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, নুরুল হক নূর তার ফেসবুক পেজ থেকে গত ১৪ এপ্রিল ধর্মীয় উস্কানিমূলক বক্তব্যসহ আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করে এমন আপত্তিকর আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেন। তার এই আক্রমণাত্মকমূলক মিথ্যা উস্কানিমূলক বক্তব্য পোস্ট, শেয়ার এবং কমেন্টের মাধ্যমে সারাদেশের আওয়ামী লীগের অসংখ্য ধর্মপ্রাণ কর্মী-সমর্থকের ধর্মীয় মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে আঘাত করেছে। এভাবে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে দেশের সামগ্রিক অবস্থা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ও দেশের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, বিভেদ ও ঘৃণা সৃষ্টি এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করায় বিবাদী ও সহযোগী সমর্থকদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন বাদী।

আশরাফুল ইসলাম সজীব বলেন, নূর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ‘চিটার’, ‘বাটপার’, ‘চাঁদাবাজ’, ‘টেন্ডারবাজ’ বলে উল্লেখ করেন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের খবর নেই, অথচ আলেম-ওলামাদের চরিত্র হরণ করে বলে উক্তি করেন নূর। একজন ধর্মপ্রাণ সচেতন মুসলিম এবং আওয়ামী পরিবারের সদস্য হিসেবে আমি মনে করছি, তার এই বক্তব্য আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লেগেছে। তাই আমি তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।

এ বিষয়ে নুরুল হক নূর বলেন, রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আমরা অনেক কথা বলি৷ সে জায়গা থেকে আমি এ ধরনের কথা বলেছিলাম। আমার মনে হয় না, সে লাইভে আইন-শৃঙ্খলা বিরোধী বা কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে এ রকম কোন কথা বলেছি। তারপরও আমার কথায় কেউ কষ্ট পেয়ে থাকলে পরের আরেকটি লাইভে আমি ক্ষমাও চেয়েছি। এরপর আর এ বিষয় নিয়ে তো কিছু করার থাকে না।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে যুবলীগের নেতা মামলা করেছে। আমরা যেহেতু এই মুহূর্তে একটা রাজনৈতিক শক্তি সেহেতু সংগঠনের শীর্ষ নেতা হিসেবে আমাকে গ্রেপ্তার করার জন্য সরকার পাঁয়তারা করছে৷ কিন্তু আমরা এতে ভীত সন্ত্রস্ত নই। আমরা এগুলো আইনগতভাবে মোকাবেলা করবো।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার বিকেলে ফেসবুক লাইভে এসে হেফাজতে ইসলামের নেতাদের সুরে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নুরুল হক নূর বলেন, কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগ করতে পারে না। যারা এই আওয়ামী লীগ করে তারা চাঁদাবাজ, ধান্ধাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, চিটার-বাটপার এই ধরনের মুসলমান। শুক্রবার একদিন নামাজ পড়তে যাবে, আর পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের কোন খবর নাই।

হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের রিসোর্ট কাণ্ড সরকারের ‘চাল’ রয়েছে বলে দাবি নূর বলেন, আওয়ামী লীগের উগ্রবাদীরা আলেম-ওলামাদের নিয়ে যেভাবে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে, তাদের চরিত্র হরণ করছে, এরা মুসলমান হতে পারে না। এদের কোনো ইমান নাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here