ডাকাতের হামলায় একজনের মৃত্যু

0
280

 

খুলনা টাইমস প্রতিনিধি:
ঝিনাইদহঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে ডাকাত দলের হামলায় দুই গৃহকর্তা আহত হয়েছেন। এসময় এক ডাকাতকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। ঘটনার সময় এক প্রতিবেশীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) দিবাগত রাতে কোটচাঁদপুর উপজেলার রহমতপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

কোটচাঁদপুর হাসপাতালের চিকিৎসক নাজমুস সাকিব বলেন, ‘ডাকাতসহ তিন জনকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন এলাকাবাসী। তাদের মধ্যে দাউদ হোসেন পথে মারা যান। তবে লাশের গায়ে কোনও চিহ্ন নাই। স্ট্রোকজনিত কারণে মারা যেতে পারে। বাকি দুই জন চিকিৎসাধীন রয়েছে।’

কোটচাঁদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘এটি ডাকাতির ঘটনা কিনা, তা নিশ্চিত করে এখনও বলা সম্ভব হচ্ছে না। কি উদ্দেশে তারা গিয়েছিল তা জানা যায়নি। তবে তাদের একজন ধরা পড়েছে। মারধর করায় সে গুরুতর আহত হয়েছে। চিকিৎসা চলছে। সুস্থ হলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মূল ঘটনা জানা যাবে।’

প্রতিবেশী তরিকুল ইসলাম ও সেলিম হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ওই গ্রামের মন্টু মিয়ার বাড়িতে একদল ডাকাত ঢুকে গৃহকর্তাকে মারধর করে। এসময় গৃহকর্তার চিৎকারে পাশের লোকজন ছুটে এলে তাদের ওপরও হামলা চালায় ডাকাতদল। বাড়ির লোকজন ডাকাতদের ধাওয়া করলে তাদের হাতে ধরা পড়ে এক ডাকাত। এ সময় ডাকাতরা তাকে ছাড়াতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে দাউদ হোসেন নামে এক ব্যক্তি পড়ে গিয়ে আহত হন। এসময় তার ভগ্নিপতি শফি উদ্দিন ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হন। ওই দুই জনকে উদ্ধার করে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে নেওয়ার পথে দাউদ হোসেন মারা যান। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে ভগ্নিপতি শফি উদ্দিন।

খবর পেয়ে কোটচাঁদপুরের সাবদারপুর পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ডাকাত তাহাজ্জেলকে উদ্ধার করে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে নিয়ে যান। বর্তমানে সে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাহাজ্জেল মন্ডল চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার রায়পুর কুমার পাড়ার ভাদু মন্ডলের ছেলে। পুলিশ তার কাছ থেকে ব্যবহারের মোবাইল সেটটি উদ্ধার করেছে।