ডাকসু নির্বাচন করতে হবে ৬ মাসের মধ্যে

0
326

অনলাইন ডেস্ক :
আগামী ৬ মাসের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন অনুষ্ঠানে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে আইন-শৃঙ্খালা বাহিনীর সহায়তা দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বুধবার এ বিষয়ে জারি করা রুলের শুনানি শেষে বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এ আদেশের ফলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভোটাররা ভোটাধিকার ফিরে পেল বলে জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

দুই যুগ ধরে ডাকসু নির্বাচন না হওয়ায় প্রশাসনকে বাধ্য করতে ২০১২ সালে এই রিট আবেদন করেছিলেন ২৫ শিক্ষার্থী। তখন আদালত রুল দিয়ে জানতে চেয়েছিল, ডাকসু নির্বাচন করার ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না। শিক্ষা সচিব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ট্রেজারার, রেজিস্ট্রার ও প্রক্টরের কাছে এই জবাব চাওয়া হয়েছিল। সেই রুলে সে রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আদালত বিষয়টি বুধবার আদেশের জন্য রাখে।

আদালতে রিট আবেদনকারীদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী অমিত তালুকদার।

শুনানিতে মাহবুবে আলম বলেন, নির্বাচনের জন্য পরিস্থিত বিবেচনা করতে হবে। অনুকূল পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বর্তমানে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট নির্বাচন চলছে।

অন্যদিকে, আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অর্ডার অনুসারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিকাশের জন্য ডাকসুর নির্বাচিত প্রতিনিধিরা কাজ করবেন। অথচ ১৯৯১ সাল থেকে ডাকসুতে নির্বাচিত প্রতিনিধি নেই। ফলে শিক্ষার্থীদের সার্বিক বিকাশ ব্যাহত হচ্ছে। ওই অর্ডার অনুসারে সিনেটে ডাকসুর প্রতিনিধি থাকবেন। ডাকসুর প্রতিনিধি না থাকায় সিনেটের কার্যক্রমও ব্যাহত হচ্ছে।