টেস্টের ইতিহাসে যত লজ্জা

0
356

স্পোর্টস ডেস্ক:
দীর্ঘ ৭ মাস পর টেস্ট খেলতে নেমে লজ্জার রেকর্ড গড়লো বাংলাদেশ দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে মাত্র ৪৩ রানে অল আউট হয়েছে সাকিব আল হাসান নেতৃত্বাধীন দলটি।

আজ বুধবার অ্যান্টিগায় টস জিতে ব্যাট করতে নেমে আসা যাওয়ার মিছিল শুরু করে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দলের নতুন কোচ স্টিভ রোডস যোগ দেয়ার পরই এমন লজ্জায় পড়তে হলো সফরকারীদের। ক্যারিবিয়ান বোলারদের দাপটে মাত্র ১৮ ওভার ৪ বল খেলতে সক্ষম হয়েছে তামিম-লিটনরা।

টেস্টের ক্রিকেটের ১৪১ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে কম রানে অল আউট হবার তালিকায় ১১ নম্বরে উঠে এসেছে সাকিবের দল।

১৮৭৭ সালে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার ঐতিহাসিক টেস্টের পর আজকের ম্যাচটি নিয়ে মোট ২ হাজার ৩১০টি ম্যাচ চলছে। এরমধ্যে সবচেয়ে কম ২৬ রানে সব উইকেট হারিয়ে মাঠ ছাড়ে নিউজিল্যান্ড।

ইংলিশদের বিপক্ষে ১৯৫৫ সালেও ওই ম্যাচে ২৭ ওভার খেলেছিলেন কিউইরা।

মাত্র ৩০ রানে দুইবার অলআউট হবার নজির রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। ১৮৯৭ সালে ও ১৯২৪ সালে দুইবারই ইংল্যান্ডের কাছে সব উইকেট দিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় প্রোটিয়াদের।

দক্ষিণ আফ্রিকার লজ্জা এখানেই শেষ নয়। ৩৫ রানেও সব উইকেট হারিয়ে ড্রেসিং রুমে যাওয়ার নজির আছে দলটির। ১৮৯৯ সালে ইংলিশদের বিপক্ষেই এই লজ্জা পেতে হয়েছিল আফ্রিকা মহাদেশের পরাশক্তিকে। এছাড়া ১৯৩২ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩৬ রানে গুটিয়ে যাওয়ার আরেকটি রেকর্ড আছে দলটির।

ক্রিকেটের ইতিহাসের সবচেয়ে সফলতম দল অজিরাও ৩৬ রানে অলআউট হয়েছিল। ১৯০১ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে এই লজ্জা পেতে হয় তাদের।

এই তালিকায় সপ্তম, অষ্টম ও নবম স্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারত। প্রত্যেকেই ৪২ রানে অল আউট হয়েছে। ১৯৪৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের তাণ্ডবের শিকার হয় ব্ল্যাকক্যাপসরা। এদিকে ১৮৮৮ সালে ইংল্যান্ডের কাছে সব উইকেট হারিয়ে দিয়ে আসে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়া। আর ১৯৭৪ সালে ইংলিশদের বিপক্ষে লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়ে ভারতীয়রা।

তালিকার দশম স্থানে রয়েছে ইংলিশদের বিপক্ষে ৪৩ রানে অলআউট হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৮৮৯ সাল কেপটাউনে সবকটি উইকেট উপহার হিসেবে দিয়ে মাঠ ছাড়ে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা।