ঝিনাইদহে জিংক ধানের মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

0
485

বুধবার (২৪ অক্টোবর) বিকালে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পোড়াহাটি ইউনিয়নের বারোইখালি গ্রামের কৃষক আব্দুস সালামের জিংক ধান ব্রি ধান ৬২ জাতের মাঠে মাঠদিবস অনুষ্ঠিত হয়। হার্ভেস্টপ্লাস বাংলাদেশের “ডেলিভারি অব হাই জিংক রাইস ইন বাংলাদেশ” প্রকল্পের সহযোগি সংস্থা হিসেবে স্থানীয় এনজিও উন্নয়ন ধারা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।স্থানীয় মাঠে এউপলক্ষে এক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে জিংক ও কৃষির উপর আলোচনা রাখেন সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোফাক্খারুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উন্নয়ন ধারার পিএফএসএসএ প্রকল্পের সমন্বয়কারি হায়দার আলী, হার্ভেস্টপ্লাস প্রকল্প সমন্বয়কারি কৃষ্ণ দাস সাহা,কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকার্তা রোকনুজ্জামান,জোনায়েদ হাবিব।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কৃষক নেতা হামিদুল ইসলাম। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পোড়াহাটি ইউনিয়নের উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা রিজিয়া খাতু,সমন্বয়কারি সাইফুল ইসলাম, কৃষিবিদ রুবেল আলী, হার্ভেস্টপ্লাস প্রকল্পের ডাটা ম্যানেজমেন্ট অফিসার তানভীর আহমদ রনি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং অত্র এলাকার কৃষাণ-কৃষাণীবৃন্দ। আলোচনা শেষে জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান৬২ জাতের মাঠে ক্রপ কাটিং প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন করেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোফাক্খারুল ইসলাম। উক্ত অনুষ্ঠানে জিংক সমৃদ্ধ ব্রি ধান ৬২ জাতের মাঠে ক্রপ কাটিং করা হয় এবং আমন মৌসুমে শুকনো অবস্থায় ৪.৭ টন/হেক্টর ফলন রেকর্ড করা হয়।

আলোচনা পর্বে কৃষকগণ তাদের মতামত ও অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন। এছাড়া বক্তারা বলেন যে, বাংলাদেশে আজকাল মা ও শিশুদের মধ্যে জিংকের ব্যাপক অভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এ অনুপুষ্টি উপাদান দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি শিশুদের শারীরিক বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং বিশেষভাবে কিশোরী মেয়ে ও গর্ভবতী মায়ের শারীরিক দূর্বলতা দূর করে। জিংকের অভাব দূর করার ক্ষেত্রে এই স্বল্পমেয়াদী জাতটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে এবং দেশের পুষ্টির অভাবে ভোগা মানুষের স্বাস্থ্য ও পুষ্টির অবস্থা উন্নয়নের পাশাপাশি ক্রপিং প্যাটার্নেও বিশেষ অবদান রাখবে বলে উপস্থিত সকলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।প্রতিনিধি