জুটমিল শ্রমিকদের সংবাদকর্মীদের সাথে অশোভন আচরনের নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
410

খবর বিজ্ঞপ্তি:
খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্যরা খুলনাঞ্চলের সকল শ্রেনী-পেশার মানুষের নানাবিধ সমস্যা, সম্ভাবনা ও উন্নয়ণ কর্মকান্ড মানুষ, সমাজ ও দেশের কল্যানে বিনাসংকোচে সাহসীকতার সাথে মিডিয়ায় তুলে ধরে থাকে। যে কারনে খুলনার সাংবাদিক সমাজের সাথে এ অঞ্চলের মানুষের সৌহার্দ্য বজায় রয়েছে। কিন্তু আমরা লক্ষ্য করছি যে, খুলনার সরকারী ৯টি পাটকল শ্রমিক-কর্মচারীরা তাদের ন্যায় সঙ। গত দাবী আদায়ে আন্দোলনের খবর সংগ্রহ করার সময় কিছু কিছু শ্রমিক নেতা ও সাধারন শ্রমিক টেলিভিশনের সাংবাদিক ও ক্যামেরাপার্সনদের সাথে অশোভন আচরন, গালিগালাজ, নানা ধরনের বাজে ব্যবহার ও হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার এক বিবৃতিতে শ্রমিকদের আন্দোলনের খবর সংগ্রহের সময় সংঘটিত এসব ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির নেতৃবৃন্দ। একই সাথে আগামীতে এ ধরনের ঘটনা যেন না ঘটে সেজন্য পাটকল শ্রমিক নেতা ও সাধারন শ্রমিকদের সতর্কতা অবলম্বনের আহবান জানানো হচ্ছে। অন্যথায় আগামীতে পাটকল শ্রমিকদের সব ধরনের খবর সংগ্রহ ও প্রচার বয়কট করাসহ টেলিভিশন সাংবাদিকরা কঠোর ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে।
ইতিমধ্যেই শ্রমিক নেতা ও সাধারন শ্রমিকদের এমন অনাকাঙ্খিত ও দু:খজনক ঘটনার কারনে চ্যানেল২৪, এসএটিভি, সময় টিভি, যমুনা টিভি, ডিবিসি, দীপ্তটিভি, মোহনা টিভি, দেশ টিভি, এশিয়ানটিভিসহ অধিকাংশ টিভি চ্যানেলের সাংবাদিকরা পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলনের খবর সংগ্রহ ও প্রচার থেকে বিরত রয়েছেন। এখনও কেটিআরইউ সদস্যভুক্ত যে সব টিভি চ্যানেলের প্রতিনিধিবৃন্দ শ্রমিক আন্দোলনের খবর সংগ্রহ করছেন তাদেরকে সতর্কতার সাথে নিজ দায়িত্বে করার জন্য আহবান জানানো হলো। কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলে কেটিআরইউ’র কোন কিছুই করনীয় থাকবে না।
বিবৃতিদাতা হলেন-খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মামুন রেজা ও সাধারন সম্পাদক সুনীল দাস, সহসভাপতি মল্লিক সুধাংশু ও শামছুজ্জামান শাহীন, যুগ্মসম্পাদক আমিরুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ অভিজিৎ পাল, প্রচার, প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাত রুমী, নিবার্হী সদস্য মকবুল হোসেন মিন্টু, মুন্সী মাহাবুব আলম সোহাগ, রকিব উদ্দিন পান্নু, বাবুল আকতারসহ সকল সদস্যবৃন্দ।