জীবিত গাছ কর্তন : তদন্ত প্রতিবেদনে ঝিকরগাছা সুরতজান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি অভিযুক্ত

0
429

এম জে ফরাজী, খুলনা টাইমস
যশোরের ঝিকরগাছা সুরতজান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দুটি মরা গাছের টেন্ডার দিয়ে ৬টি জীবিত গাছ কর্তন করে অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চলের তদন্ত প্রতিবেদন সম্প্রতি দাখিল করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মীর বাবরজান (বরুন) কে অভিযুক্ত করা হয়েছে এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এ কাজে সহযোগিতা করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ঝিকরগাছা সুরতজান বিদ্যালয়ে ২টি মরা গাছ টেন্ডার দিযে বিক্রি করা হলেও বিধি বহির্ভূতভাবে গত ১৬/০২/১৮ তারিখে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে জীবিত আরও ৬টি বড় গাছ কর্তন করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মাধ্যমে ২০-২৫ বছর পূর্বে গাছগুলো লাগানো হয়েছিলো বলে জানা গেছে। গাছ কর্তনের কারণে শিক্ষার সুষ্ঠু প্রাকৃতিক পরিবেশ বিঘিœত হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মীর বাবরজান (বরুন) যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না নিয়েই জীবিত গাছগুলো বিক্রি করে আইন অমান্য করেছেন। এ কাজে সহযোগিতা করেছেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ। এছাড়া ম্যানেজিং কমিটি উক্ত গাছ বিক্রির অর্থ আত্মসাত করেছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সচিব হয়েও তহবিল ও সম্পত্তির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন বলে প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়।
তদন্ত কর্মকর্তা ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চলের সহকারী পরিচালক মো: সিরাজুল ইসলাম জানান, যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলাধীন সুরতজান মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে বিধিবহির্ভূতভাবে বিদ্যালয়ের গাছ কর্তন করে অর্থ আত্মসাতের সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের সভাপতি, প্রধান শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করা হয়েছে।