জাতিকে নিরাপদে রাখতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই : আ’লীগ

0
365

বিজ্ঞপ্তি : আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বলেছেন, বাংলার জনগণ দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থ বারের মত প্রধানমন্ত্রী দেখতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শাসনামলে দেশে শিক্ষা, কৃষি, বিদ্যুৎ, ব্যবসা বাণিজ্যসহ সকল সেক্টরে অভূতপূর্ব উন্নতি হওয়ায় দেশের মানুষ সন্তোষ্ট। তার কাজের এই সফলতা আজ শুধু দেশের মধ্যেই নয় ; সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। যেকারনেই বিশ্ব নেতারাও চায় শেখ হাসিনা পুনরায় রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বে পরিণত করুক।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আইন শৃংখলা ভালো থাকে, মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারে। আর বিএনপি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকলে দেশে নৈরাজ্যে পরিণত হয়। দেশে হত্যা, লুটতরাজ, দূর্ণীতি, নারী নির্যাতন বেড়ে যায়। বিএনপি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকতে বাংলাদেশে স্বাধীনতার স্বপক্ষের মানুষদের বেছে বেছে হত্যা করেছে। আজ তারা গণতন্ত্রের জন্য মায়া কান্না কাঁদছে। যারা গণতন্ত্র হত্যা করে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসে তাদের দ্বারা রাষ্ট্রে গণতন্ত্র সংবিধান ও সার্বভৌমত্ব নিরাপদ নয়। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দেশ ও জাতিকে নিরাপদে রাখতে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। সেজন্যে প্রত্যেক ওয়ার্ডে মানুষের কাছে গিয়ে শেখ হাসিনার উন্নয়নকে তুলে ধরার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় ৩০ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ আয়োজিত নির্বাচনী ক্যাম্পেইন সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গাজী মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, জেলা আওয়ামী লীগ বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রফিকুর রহমান রিপন, মহানগর আওয়ামী লীগ উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মফিদুল ইসলাম টুটুল, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম।

সভা পরিচালনা করেন, ওযার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. শিহাব উদ্দিন। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখছেন, আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফুন নেছা লুৎফা, ফারুক হোসেন তুরান, বুলবুল আহমেদ, এ্যাড. ফারুক হোসেন, মনিরুল ইসলাম মনি, আবু হোসেন, ফিরোজ আহমেদ ফারুক। এসময়ে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।