জমির মালিকদের দখলে তালা মুড়াগাছার ঢালির চকের সরকারী খাল

0
487

এম আর জামান টিপু, তালা প্রতিনিধি: তালা উপজেলার খেশরা ইউনিয়নের মুড়াগাছা মৌজার ঢালির চকের সরকারী খাস খাল এখন পর্শ্ববর্তী জমির মালিকদের দখলে। এতে মাহবিপাকে পড়েছে ৪ হাজার বিঘা জমির মালিকরা। জমির পানি নিষ্কাশনে হিমশিম খাচ্ছে কৃষকেরা। হাটু সমান পানিতে নেমে ধান কাটতে হচ্ছে চাষিদের।
সরেজমিন ঘুরে দেখাযায়, উপজেলার মুড়াগাছা মৌজার ঢালির চকের সরকারী খাস খালটি খননের অভাবে পানি নিষ্কাসনের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সে সুযোগেই খালের পার্শ্ববর্তী জমির মালিকরা যার যার জমির সামনে বেড়ি বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ শুরু করেছে।স্থানীয় সওকত হোসেন, জাহাঙ্গির হোসেন, মহব্বত সরদার, আব্দুল আজিজ সরদার, মজীদ সরদার, লেয়াকত আলী সরদার, রুহুল আমিন সরদার, আবুল কাসেম, আকবর সরদারসহ অনেকেই তাদের জমির সামনের খাস খালে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করছে।
এব্যাপারে স্থানীয় মৃত হাবিবুল্লাহ সরদারের পুত্র মজিদ সরদার বলেন, ১৯৮৪ সালে কেয়ার প্রকল্পের আওতায় ঢালির চক খালের পাশে রাস্তা করায় এ খাল ছোট হয়ে যায়। এরপর থেকে জমির মালিকরা তাদের জমির সামনের জায়গায় বেড়িবাঁধ দিয়ে নিজেরা দখল করছে। যার ফলে বর্তমান সকলেই ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। স্থানীয় প্রসাশনের কাছে একটায় দাবি করবো, যতদ্রুত সম্ভব ঢালির চকের এ খালটি পুনঃখনন করে পূর্বের ন্যায় পানি ওটা নামার ব্যবস্থা করতে।
মহাব্বত সরদার বলেন, মুড়াগাছা মৌজার ঢালির চকের খালের পাশ দিয়ে কেয়ার এর যে রাস্তাটি বহমান সেটি আমাদের খুবই প্রয়োজন। এ রাস্তার দু পাশেই রয়েছে সরকারী খাশ খাল, রাস্তার দু পাশ দিয়ে খাল কাটলে রাস্তার কি হবে। স্থানীয় জন প্রতিনিধি ও প্রসাশনের ব্যক্তিরা সরেজমিন পরিদর্শন করে যেটা ভালো মনে করেন সেটায় যেনো করে।
এদেিক স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাজিব হোসেন রাজু এ প্রতিবেদক কে বলেন, ঢালির চকের ঐ খালটি কিছু জমির মালিকরা বেড়িবাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করছে। যতদ্রুত সম্ভব খালটি পুনঃখননের জন্য উপজেলা প্রসাশনের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।
তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরিন বলেন, সরকারী খাল যেই দখল করুক না কেনো সেটা অবশ্যই দখল মুক্ত করা হবে। যদি খালের নব্যতা সংকট হয় তাহলে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে সেটা খনন করারও ব্যবস্থা করবো।