চেলসি-সেভিয়া ড্র, ডর্টমুন্ডকে হারাল লাৎজিও

0
189

টাইমস স্পোর্টস:
ঘরের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে বর্তমান ইউরোপা লিগ চ্যাম্পিয়ন সেভিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র’তেই চ্যাম্পিয়নস লিগে যাত্রা শুরু করতে হয়েছে চেলসিকে। এদিকে লাৎজিওর বিপক্ষে ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরে বসেছে বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড। চ্যাম্পিয়নস লিগে অভিষেকটা সুখকর হলো না ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের। ২০২০/২১ মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে ঘরের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে সেভিয়ার সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে থামতে হয়েছে ব্লুজদের। ম্যাচ জুড়ে চেলসির মাঠেই আধিপত্য দেখিয়েছে সেভিয়া। বল নিজেদের দখলে রেখে আক্রমণটাও দারুণ করেছে স্প্যানিশ ক্লাবটি। সদ্যই ইউরোপা লিগ জেতা সেভিয়া চেলসির মাঠে দুর্দান্ত পারফর্ম করেছে। টিমো ভার্নার, কাই হার্ভাটজ, ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ, মেসন মাউন্টদের নিয়ে গড়া আক্রমণভাগকে বেশ ভালোভাবেই দমিয়ে রেখেছিল সেভিয়ার রক্ষণ। অন্যদিকে অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী দল নিয়েও চেলসির রক্ষণের বেশ ভালোই পরীক্ষা নিয়েছে হুলেন লোপেতেগির সেভিয়া। ম্যাচের ১৮ মিনিটেই অবশ্য এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ এসেছিল সেভিয়ার কাছে, তবে চেলসি গোলরক্ষক মেন্ডির দারুণ সেভে সে যাত্রায় রক্ষা হয়। ম্যাচের ৩১ মিনিটে গোলের দারুণ এক সুযোগ তৈরি করে চেলসি তবে ভার্নারের শট সেভিয়া গোলরক্ষক রুখে দিলে গোলবঞ্চিত হয় ব্লুজরা। এভাবে আক্রমণ প্রতি আক্রমণে শেষ হয় প্রথমার্ধ। তবে গোলের দেখা পায়নি দু’দলের কেউই। দ্বিতীয়ার্ধে আরও আক্রমণাত্মক হয়ে খেলতে থাকে চেলসি আর গোলের সুযোগও তৈরি করতে থাকে। তবে ফলাফলটা আসছিল না কোনোভাবেই। খেলার শেষ দিকে আরও কিছু গোলের সুযোগ পায় দুই দলই কিন্ত কাজে লাগাতে ব্যর্থ হলে গোলশূন্য ড্র করেই সন্তষ্ট থাকতে হয় চেলসি ও সেভিয়াকে। এদিকে দিনের অপর ম্যাচে বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড ৩-১ গোলের ব্যবধানে হেরে বসেছে লাৎজিওর কাছে। ম্যাচ হারলেও চ্যাম্পিয়নস লিগের এবারের মৌসুমের স্কোরশিটে নাম তুলেছেন অর্লিং হালান্ড। ইতালির রোমে লাৎজিওর হয়ে গোলের সুচনা করেন ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শ্যু জয়ী চিরো ইম্মোবিল। ম্যাচের মাত্র ষষ্ঠ মিনিটে ওয়াকুয়েন কোরেয়ার অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেন ইম্মোবিল। এরপর ২৩তম মিনিটে আত্মঘাতি গোল করেন বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের মারউইন হিটজ। আর তাতেই ২-০ গোলে এগিয়ে যায় লাৎজিও। দ্বিতীয়ার্ধে খেলা কিছুটা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয় বুরুশিয়া। ম্যাচের ৭১ মিনিটে এসে জিওভান্নি রেয়নার অ্যাসিস্ট থেকে গোল করে দলকে খেলায় ফেরানোর ইঙ্গিত দেন অর্লিং হালান্ড। কিন্ত এর মাত্র পাঁচ মিনিট পর চিরো ইম্মোবিলের অ্যাসিস্ট থেকে জিন ড্যানিয়েল গোল করে লাৎজিওর ব্যবধান ৩-১ করেন। আর শেষ পর্যন্ত এই ব্যবধানেই ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে লাৎজিও।