চেক জালিয়াতি মামলায় ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত  আসামি ২৮ দিনেও গ্রেফতার হয়নি

0
330

নিজস্ব প্রতিবেদক: চেক জালিয়াতি মামলায় ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত আসামি ধানমন্ডি এয়ার ট্রাভেলস্ ও নিউ এয়ার ট্রাভেলস্ এর স্বত্তাধিকারী আইরিন আক্তারকে গত ২৮ দিনেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। প্রতারক আইরিন আক্তার বিভিন্ন পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণা অব্যাহত রেখেছে বলে জানা গেছে।
মামলা ও আদালত সূত্র জানায়, খুলনার বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ মোঃ মহসীন তার মেয়েকে মালেয়শিয়া পাঠানোর জন্য ধানমন্ডি এয়ার ট্রাভেলস্ থেকে ৩৫ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে টিকিট কাটেন। কিন্তু পরে যাওয়ার জন্য সময় পরিবর্তন হওয়ায় তিনি টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য ওই প্রতিষ্ঠানে যোগাযোগ করলে প্রতিষ্ঠান থেকে বলা হয় সব টাকা ফেরত পাওয়া যাবেনা। কিছু টাকা কেটে রাখা হবে। তিনি তাদেও কথায় রাজী হন। এরপর প্রতিষ্ঠানের মালিক আইরিন আক্তার ২০১৫ সালের ১৫ নভেম্বর মিউচুয়াল ট্রাষ্ট ব্যাংক লিঃ এ ২৪ হাজার ৪০০ টাকার একটি চেক ডাঃ মোঃ মহসীনের অনুকুলে প্রদান করেন। চেকটি হাতে পাওয়ার পর তিনি ব্যাংকে জমা দিলে ২০১৬ সালের ২২ ফেব্রæয়ারি সেটি ডিজঅনার হয়। পরের দিন ২৩ এপ্রিল ডাঃ মোঃ মহসীন লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে ওই প্রতিষ্ঠানটি টাকা ফেরত না দেওয়ায় ২০১৬ সালের ১৮ এপ্রিল যুগ্ম-মহানগর দায়রা জজ আদালতে চেক জালিয়াতি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং সি আর ৪১২/২০১৬)। এরই মধ্যে প্রতারক আইরিন তার ধানমন্ডি এয়ার ট্রাভেলস্ নাম পরিবর্তন করে নিউ এয়ার ট্রাভেলস্ প্রতিষ্ঠান খুলে ব্যবসা শুরু করেন। গত ১৯ মার্চ যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক মোঃ আব্দুল্লাহ-আল মামুন এ মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আইরিন আক্তারকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড  এবং চেকে উল্লেখিত টাকা ২৪ হাজার ৪০০ টাকা অর্থ দন্ড প্রদান করা হয়।
মামলার বাদী ডাঃ মোঃ মহসীন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ ধরণের প্রতারনার ব্যবসা যারা করেন তাদেও শাস্তি হওয়া উচিত। তিনি সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে দ্রæত গ্রেফতারের দাবি জানান।#