চুকনগরে ২০ বছরের দখলকৃত জাল ধরা নদী হতে উচ্ছেদের পায়তারা

0
464

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি : চুকনগরে দীর্ঘ ২০বছর নদীতে জাল ধরে মাছ মেরে জীবন ও জীবিকা নির্বাহ করায় প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে তাকে নদী থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে একটি প্রভাবশালী মহল। ইতিমধ্যে তাকে কয়েক দফা পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে জাল দড়ি কেড়ে নিয়ে নদী থেকে তুলে দেয়া হয়েছে। উর্পাজনের একমাত্র পথ বন্দ করে দেয়ায় বর্তমানে পুরো পরিবারটি অনাহারে অর্ধহারে জীবন যাপন করছে।
জানা যায়, ডুমুরিয়া উপজেলার মঠবাড়িয়া গ্রামের মৃত কেষ্টপদ বিশ্বাসের পুত্র মাধব চন্দ্র বিশ্বাস ২০০১সালে অনিল বিশ্বাসের পুত্র সাধন বিশ্বাসের কাছ থেকে তেলীগাতি নদীর মধ্যে আডুখালির মুখ হতে কুলবাড়িয়া গেট পর্যন্ত লিখিত চুক্তিপত্রের মাধ্যমে জালাজ পজিশন ৩০হাজার টাকা দিয়ে ক্রয় করে। সেই থেকে দীর্ঘ ২০বছর ধরে তিনি উক্ত নদীতে জার ধরে (খেওন) মাছ মেরে আসছে। কিন্তু গত ২মাস আগে শোভনা গ্রামের মনু বিশ্বাসের পুত্র উজ্জ্বল বিশ্বাস ও এরশাদ আলী সহ ৭/৮জন ব্যক্তি হঠ্যাৎ নদীতে এসে জোর পূর্বক তার জাল দড়ি কেড়ে নেয়াসহ তাকে পিটিয়ে গুরুত্বর জখম করে নদী থেকে তুলে দেয়। এঘটনাকে কেন্দ্র করে ডুমুরিয়া থানা সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এদিকে নদীতে মাছ মারতে না পারায় তার পুরো পরিবার বর্তমানে অনাহারে অর্ধহারে দিন যাপন করছে। বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিকরা সাবেক মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি মহোদয়কে অবহিত করলে তিনি তৎক্ষনাৎ ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেন। ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বলেন বিষয়টি নিয়ে সারের সাথে কথা হয়েছে। আমরা ১/২দিনের মধ্যে এর একটি সুষ্টু সমাধান করার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।