চাকুরী দেওয়ার প্রলোভনে সৌদিতে বিক্রি অতঃপর ১১ জন কর্তৃক ধর্ষণ, মামলা

0
633

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিদেশে চাকুরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরবে এক নারীকে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে সেখানকার হোটেলে ও বাসা বাড়ীতে রেখে যৌন নির্যাতন এবং ১১ জন কর্তৃক ধর্ষণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে বুধবার সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা দায়েরের পর পাচারকারী আল-মামুন @ কামরুজ্জামান @ সোহাগ বাবুকে খুলনার সোনাডাঙ্গা বাসষ্ট্যান্ড থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬।
র‌্যাবের সিপিসি স্পেশাল কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ এনায়েত হোসেন মান্নান জানান, আসামী সোহাগ বাবু বাদীর মেয়েকে সৌদি আরবের দালালদের নিকট বিক্রি করলে সৌদি আরবের দালালর আবার সেখানকার বিভিন্ন দালালদের নিকট বিক্রয় করে এবং হোটেলে ও বাসা বাড়ীতে রেখে বাদীর মেয়েকে ব্যাপক যৌন হয়রানি করে। মামলার প্রেক্ষিতে আরও জানা যায়, তাকে নির্যাতনের কথা মামলার ভিকটিম তার অভিভাবককে ইমোর মাধ্যমে জানায় ও ভয়েস রেকর্ডিং পাঠায়। উক্ত ভিকটিম মেয়েটি একই দিনে ১১ জন কর্তৃক ধর্ষণের স্বীকার হয় বলে জানায়। ভিকটিম তার অভিভাবককে উক্ত ভয়াবহ যৌন হয়রানির পাশাপাশি বুকে, চোখে ও হাতে ভয়ংকর আঘাতের রক্তাক্ত ছবি ইমোতে প্রেরণ করে। এছাড়া উক্ত ভিকটিম তরুণী বিপদের কথা বলে আসামীর নিকট ফোন করলে আসামী ভিকটিমের নিকট ৪ লক্ষ টাকা দাবী করে।
এ বিষয়ে বুধবার সাতক্ষীরা সদর থানার মামলা ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। যার নং-৮০ তারিখ-২৯/০৮/১৮। মানবপাচার মামলাটি সাতক্ষীরা জেলার সদর থানায় তদন্তাধীন রয়েছে। মামলা দায়ের’র পর এজাহারভূক্ত পলাতক আসামী আল-মামুন @ কামরুজ্জামান @ সোহাগ বাবুকে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তাকে সোনাডাঙ্গা বাসষ্ট্যান্ড থেকে গ্রেফতার করা হয়। সে খুলনা নগরীর টুটপাড়া জোড়াকল বাজার এলাকার আঃ খালেক এর ছেলে।
র‌্যাব কর্মকর্তা মান্নান আরও জানান, আসামী সোহাগ বাবু সাতক্ষীরা এলাকাসহ খুলনা বিভাগের বিভিন্ন স্থান থেকে সহজ সরল গরীব তরুনী মেয়েদের বিদেশে ভাল চাকুরী দেওয়ার নামে ফুসলিয়ে ভুল বুঝিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরবসহ মধ্য প্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে দেহ ব্যবসার জন্য বিক্রয় করে থাকে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে সাতক্ষীরা সদর থানায় হস্তান্তর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।