ঘোষিত বাজেট সর্বকালের সেরা এবং গণমূখী : এস এম কামাল

0
893

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, ঘোষিত বাজেট সর্বকালের সেরা এবং গণমূখী বাজেট। এ বাজেট দেশের সার্বিক উন্নয়নসহ শিক্ষা, কৃষি, শিল্প, সামাজিক নিরাপত্তার উপর অধিক গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। তিনি সামাজিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশে শেখ হাসিনাই একমাত্র প্রধানমন্ত্রী, যিনি সাধারণ মানুষর কথা বিবেচনা করে বাজেটে বৃদ্ধভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতাসহ নানাবিধ সামাজিক নিরাপত্তা ভাতা রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা বলেই তিনি সাধারণ মানুষর কথা বিবেচনা করে বাজেট পেশ করেন। এ বাজেটে কর কমানোর মধ্যদিয়ে সাধারণ মানুষের ব্যবহার্য জিনিস পত্রের দাম কমানো হয়েছে। তিনি এ বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, বাজেটে নজীরবিহীন সামাজিক নিরাপত্তাই প্রমান করে শেখ হাসিনা এদেশের মানুষকে প্রাধান্য দেন। পদ্মা সেতুতে রেললাইনসহ দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নে ফয়লায় বিমান বন্দর, মংলা বন্দর, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, রেললাইন, রেলস্টেশনসহ সার্বিক উন্নয়নে বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অনুরোধ জানান।

শুক্রবার বলা ১১টায় দলীয় কার্যালয় চত্বরে মহানগর শ্রমিক লীগ আয়োজিত মিছিলপূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মহানগর শ্রমিক লীগ সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. সাইফুল ইসলাম। মহানগর শ্রমিক লীগ সাধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শ্রমিক নেতা মোতালেব মিয়া, মল্লিক নওশের আলী, আলহাজ্ব ফারুক হোসেন, বাবুল হোসেন, কাজী আব্দুল ওহাব, আব্দুর রহিম খান, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুর রশিদ শিকদার, আসাদুজ্জামান মুন্না, খোন্দকার জাহাঙ্গীর আলম, শরীফ মোর্ত্তজা আলী, মুন্সি ইউনুস আলী, মতিউর রহমান, শেখ রমজান আলী, জামাল হোসেন, আকতার হোসেন, শরীফুল ইসলাম, এস এম ইমরুল আলম, লিয়াকত মুন্সি, আসাদুজ্জামান আবু, মীর মোতালেব, আজাদ, আব্দুল হাকিম, মোল্লা মাহাবুবুর রহমান, আসলাম হোসেন, মশিউর রহমান মিলন, বিপ্লব কুমার দে, নুর ইসলাম, মোহাম্মদ আলী, সবুজ, জলিল, বীরমুক্তিযাদ্ধা নজীর মাল্লা, সাদ্দাম হোসেন সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। সমাবেশ শেষে এক বিশাল আনন্দ মিছিল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্যালয় এসে শেষ হয়।